BREAKING NEWS

০৯  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২৫ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ফের উত্তপ্ত সবরীমালা, ১১ জন মহিলাকে আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশে বাধা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: December 23, 2018 11:54 am|    Updated: December 23, 2018 11:54 am

11 women stopped from reaching Sabarimala

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার ফের উত্তপ্ত কেরলের সবরীমালা চত্বর। আয়াপ্পার মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশের বিরুদ্ধে ফের শুরু হল বিক্ষোভ। এদিন ভোররাতে মন্দিরে ঢোকার জন্য পাম্বা বেস ক্যাম্পে পৌঁছান ১১ জন যুবতী। তারপরই বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাঁদের। শহরে ঢোকার প্রত্যেকটি গেট বন্ধ করে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেছেন আয়াপ্পা ভক্তরা।

[রাম জন্মভূমিতে যৌনকর্মীদের ভিড়! ক্ষোভ উগরে দিল গেরুয়া শিবির]

এদিন ভোররাত সাড়ে তিনটে নাগাদ মাদুরাই থেকে পাম্বা বেস ক্যাম্পে পৌঁছান ছয় ঋতুমতী মহিলা। মন্দির থেকে চার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই বেস ক্যাম্প। তাঁদের উদ্দেশ্য আয়াপ্পা দর্শন এবং পুজো দেওয়া। এরপরই খবর মেলে, তাঁদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন আরও পাঁচ যুবতী। এই খবর বিক্ষোভকারীদের কানে পৌঁছতেই পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এখনও ঋতুমতী মহিলাদের প্রবেশের বিরুদ্ধে সরব আয়াপ্পা ভক্তরা। এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি। বিক্ষোভকারীরা সাফ জানিয়ে দেন, ১১ জন মহিলাকে কোনও মতেই মন্দিরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া যাবে না। এদিকে নাছোড়বান্দা ওই মহিলারাও। তাঁদের বক্তব্য, আয়াপ্পা দর্শন না করে কিছুতেই ফিরবেন না তাঁরা। আর এতেই উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়। এরপর মন্দিরে পৌঁছনোর সমস্ত রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন ভক্তরা। এমনকী, মন্দিরের প্রধান পুরোহিত জানিয়ে দেন, মহিলারা ঢোকার চেষ্টা করলে মন্দিরের সব দরজা বন্ধ করে দেওয়া হবে।

[নাসিরুদ্দিনকে হাতিয়ার করে সংখ্যালঘু ইস্যুতে মোদি সরকারকে তোপ ইমরানের]

আর কয়েক দিন পরই বার্ষিক পুজো  শুরু হবে সবরীমালায়। তার আগে চেন্নাইয়ের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে জানানো হয়েছিল,  ৫০ জন ঋতুমতী মহিলা রবিবার আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশের ব্যবস্থা করবে তারা। সেই কারণে আগে থেকেই প্রতিবাদে ভিড় জমিয়েছিলেন ভক্তরা। মোতায়েন ছিল পুলিশও। কিন্তু ১১ জন মহিলা পাম্বা পৌঁছতেই উত্তপ্ত হয় পরিবেশ। এমন পরিস্থিতিতে আগামী ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি রাখার নির্দেশ দিয়েছেন জেলাশাসক। যাতে সবরীমালা মন্দিরের আশেপাশে ভিড় না জমে। এদিকে রাজ্যের মন্ত্রী কে সুরেন্দ্রন বলেন, সবরীমালার গতিবিধির উপর নজরদারী করতে কেরল হাই কোর্টের নির্দেশে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠিত হয়েছে। তাই সেই কমিটি এ বিষয়ে যা সিদ্ধান্ত নেবে, সেটাই মেনে নেওয়া হবে। এদিন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের বাড়ির সামনেও বিক্ষোভ দেখান ভক্তরা বলে খবর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে