BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উত্তরপ্রদেশে চিহ্নিত করোনার ‘হটস্পট’, ১৫ জেলাকে সিল করছে যোগী সরকার

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 8, 2020 4:34 pm|    Updated: April 8, 2020 5:27 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে লকডাউন বাড়বে কিনা জানা নেই। তবে সংক্রমণ রুখতে কড়া ব্যবস্থা নিল উত্তরপ্রদেশ সরকার। যে এলাকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছজনের বেশি, সেই এলাকাগুলিকে হটস্পট হিসেব চিহ্নিত করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার।রাজ্যের নয়ডা, আগ্রা, গৌতম বুদ্ধ নগর-সহ মোট ১৫টি জেলায় হটস্পট চিহ্নিত করেছে যোগী সরকার। সেই পনেরোটি জেলার বিভিন্ন এলাকা আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ। বুধবার মধ্যরাত থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হবে।

[আরও পড়ুন : গুলির লড়াইয়ে ফের উত্তপ্ত ভূস্বর্গ, সেনার হাতে বন্দি বেশ কয়েকজন জঙ্গি]

এই খবর সামনে আসার পর থেকেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। অনেকেই প্রশ্ন করছেন, লকডাউন ও সিল করার মধ্যে পার্থক্য কী? সংবাদ সংস্থা ANI সূত্রে খবর, অত্যাবশকীয় পণ্য বা ওষুধ কিনতে আর রাস্তায় বের হওয়া যাবে না। বরং সরকারি হেল্প লাইনে নম্বর ফোন করে প্রয়োজনীয় পণ্যের অর্ডার করা যাবে। ডেলিভারি বয়রা এসে তা বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে যাবে। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, যারা এই নিময় ভাঙবে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আবার যারা অত্যাবশকীয় পণ্য সরবরাহ বা ডেলিভারি বয়দের আটকাবে তাঁদের বিরুদ্ধেও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান উত্তরপ্রদেশের মুখ্য সচিব আর কে তিওয়ারি।

[আরও পড়ুন : দিল্লিতেই রয়েছেন মৌলানা সাদ, কোয়ারেন্টাইন পর্ব শেষ হলে জেরা করবে পুলিশ]

বুধবার রাজ্যের ১৫টি জেলা চিহ্নিত করা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে গৌতম বুদ্ধ নগর(নয়ডা), লখনউ, গাজিয়াবাদ, মীরাট, আগ্রা, কানপুর, বারাণসী, শামলি, বেরিলি, বুন্দেলশহর, ফিরোজাবাদ, মহারাজগঞ্জ, সীতাপুর, শাহারনপুর ও বসতি। এই এলাকার বাসিন্দারা ১১২ নম্বরে ফোন করে অত্যাবশকীয় পণ্যের জন্য অর্ডার করতে পারবেন। জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশে এখনও পর্যন্ত ৩২৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। চারজনের মৃত্যু হয়েছে। করোনার সংক্রমণে হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত নয়ডায় এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫৮ জন। আগ্রায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ জন। মীরাটে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ জন। এই পরিসংখ্যান সামনে আসার পরই কড়া পদক্ষেপ করল যোগী সরকার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement