৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মহামারী আবহে নেশার টানে পেটে যাচ্ছে বিষ মদ, বিষক্রিয়ায় পাঞ্জাবে মৃত ২১

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 31, 2020 6:30 pm|    Updated: July 31, 2020 6:46 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একে মহামারীতে রক্ষে নেই, বিষ মদ দোসর। এমনই পরিস্থিতি পাঞ্জাবে। প্রশাসন যখন করোনা সংক্রমণে লাগাম টানতে ব্যস্ত। ঠিক তখনই শহরের আনাচে-কানেচ গজিয়ে উঠেছে বিষ মদের ভাঁটি। আর লকডাউনে (Lockdown) পকেটে টান থাকায় সেই বিষেই নেশা মেটাচ্ছে অনেকে। ফলস্বরূপ শুক্রবার পাঞ্জাবের (Punjab) বিভিন্ন জেলায় মোট ২১ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। এই ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। একইসঙ্গে, বেআইনি মদের সমস্ত ভাঁটি ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

মহামারী আবহেও নেশায় লাগাম পরেনি। কাজ মিলছে না। ফলে পকেটে অর্থের টান। তাই ভরসা দেশি মদে। কিন্তু সেটাই যে বিষ হয়ে উঠবে তা বোধহয় অনেকেই ভাবতে পারেননি। পুলিশ সূত্রে খবর, গত বুধবার থেকে বিষ মদ খেয়ে একের পর এক মৃত্যু হচ্ছে অমৃতসর, গুরুদাসপুর এবং তর্ন তরনে। অমৃতসরের তারসিক্কার মুচ্ছল এবং তাংরা গ্রামে প্রথম ৫ জনের মৃত্যু হয়। অন্য জেলাও মৃত্যু মিছিল অব্যহত। শুক্রবার আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১। খবরটি প্রকাশ্যে আসতেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। খবর যায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও।  কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন : সর্বনাশা নেশা! মদ না পেয়ে স্যানিটাইজার পান করে অন্তত ৯ জনের মৃত্যু অন্ধ্রপ্রদেশে]

এদিন ট্যুইটারে মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং জানান, ‘অমৃতসর, গুরুদাসপুর এবং তর্ন তরনে বিষমদ খেয়ে অনেকের মৃত্যু হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। আমি এই ঘটনার ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। জলন্ধর ডিভিশনের কমিশনার এই তদন্ত করবেন। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সিনিয়র পুলিশ সুপার (SSP) এবং অন্য়ান্য অফিসারদের সঙ্গে সমন্বয় রক্ষা করবেন তিনি।”

[আরও পড়ুন : মহিলার গোপনাঙ্গ থেকে সোয়াব নিয়ে কোভিড পরীক্ষা, হাজতে অভিযুক্ত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement