BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দমবন্ধ হয়ে মৃত ৫০টি গরু, কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 25, 2020 10:58 pm|    Updated: July 25, 2020 11:15 pm

An Images

ছবিটি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অস্থায়ী একটি শিবিরের মধ্যে গাদাগাদি করে প্রচুর গরু রাখা হয়েছিল। এর জেরে ৫০টি গরুর মৃত্যু হওয়ায় প্রবল উত্তেজনা তৈরি হল ছত্তিশগড়ে (Chhattisgarh)। পরিস্থিতি এতটাই জটিল হয়ে পড়ে যে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী দোষীদের শনাক্ত করে কড়া শাস্তি দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছেন। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে বিলাসপুর (Bilaspur) জেলার তাখতপুর এলাকার মেধপার গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই গরুগুলিকে মেধাপার গ্রাম পঞ্চায়েতের একটি ছোট্ট ঘরের মধ্যে ঢুকিয়ে রাখা হয়েছিল। শনিবার সকালে ওই এলাকায় প্রচণ্ড দুর্গন্ধ বেরোতে শুরু করলে এলাকার মানুষ খোঁজখবর শুরু করেন। পরে পঞ্চায়েতের ওই ঘরের বন্ধ দরজার ভাঙতে বেরিয়ে আসে আসল সত্য। দেখা যায়, সেখানে ৫০টি গরু মরে পড়ে রয়েছে। খবরটি ছড়িয়ে পড়তেই দৌড়ে আসেন প্রশাসনের আধিকারিকরা। তারপর গরুগুলির মৃতদেহ ট্র্যাক্টরে করে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই রাজ্যজুড়ে উত্তেজনা তৈরি হয়। তড়িঘড়ি আসরে নেমে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল।

[আরও পড়ুন: বিজেপির হাত থেকে গণতন্ত্র ও সংবিধানকে বাঁচাতে দেশজুড়ে আন্দোলনের ডাক কংগ্রেসের]

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক। এই ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদের শনাক্ত করে কড়া শাস্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি বিলাসপুরের কালেক্টারকে। এর সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড়া হবে না।’

ওই এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, গরুগুলি বাইরে বেরিয়ে মাঠের ফসল খাচ্ছিল। তা আটকানোর জন্য পঞ্চায়েত প্রধান ও কিছু গ্রামবাসী মিলে আলোচনা করে ওই গরুগুলিকে ছোট্ট একটি ঘরের মধ্যে আটকে রেখেছিল। এর জেরে মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে বিদ্বেষমূলক টুইটের জের, মামলা JNU-এর পড়ুয়ার বিরুদ্ধে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement