BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এবার তাজেও করোনার থাবা, আক্রান্ত ৬ হোটেল কর্মী

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: April 12, 2020 11:17 am|    Updated: April 12, 2020 11:17 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার তাজ হোটেলেও করোনার থাবা। ৬ জন কর্মীর শরীরে মিলল মারণ ভাইরাস। COVID-19 রিপোর্ট পজিটিভ আসার পরই তড়িঘড়ি তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে, বলে জানানো হয়েছে হোটেল কর্তৃপক্ষের তরফে।  এঁরা সকলেই দক্ষিণ মুম্বইয়ের কোলাবার তাজমহল টাওয়ার এবং তাজমহল প্যালেসের কর্মী।

শনিবার তাজ হোটেলের করোনা আক্রান্ত কর্মীদের সম্পর্কে মুখ খোলে ইন্ডিয়ান হোটেলস কোম্পানি। প্রসঙ্গত, টাটা গোষ্ঠীর সব হোটেলগুলির সরকারিভাবে মালিকানা রয়েছে এই ইন্ডিয়ান হোটেলস কোম্পানি লিমিটেড (Indian Hotels Company Limited)-এর হাতেই। তাদের পক্ষ থেকেই একটি প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানানো হয় যে, “যে কর্মীদের উপসর্গ দেখা গিয়েছে এবং রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে, অতি তৎপরতার সঙ্গে তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। উপরন্তু এই কদিনে ওই কর্মীদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদেরও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার যথাযথ গাইডলাইনস এবং মুম্বই প্রশাসনের নিয়ম মেনেই।”

[আরও পড়ুন: স্ক্রিনিংয়ে আপত্তি, স্বাস্থ্যকর্মীদের তালাবন্দি করে রেখে পুলিশের উপর হামলা পরিবারের]

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, হোটেল কর্তৃপক্ষ কিন্তু নির্দিষ্ট করে আক্রান্ত কর্মীর সংখ্যটা প্রকাশ্যে আনেনি এখনও। তবে কর্তৃপক্ষ ঘনিষ্ঠ সূত্রে খবর, গত ৮ এপ্রিল প্রথমে চার জন কর্মীকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। তার ঠিক পরেই ১১ তারিখ আরও দুই কর্মীর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হওয়ার খবর মেলে। যাঁরা প্রত্যেকেই COVID-19 পজিটিভ। তাজের করোনা আক্রান্ত কর্মীরা আপাতত বম্বে হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এপ্রসঙ্গে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালেরই চিকিৎসক গৌতম বনসালি বলেছেন, “তাজ হোটেলের কর্মীরা বম্বে হাসপাতালেরই আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। তাঁদের প্রত্যেকেরই অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল।” তবে কর্মীদের সংস্পর্শে আসা সকলে ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইনে রয়েছেন তাজ হোটেলেই।

এমনিতেই লকডাউনের জেরে হোটেলে অতিথিদের আনাগোনা নেই। হোটেল কর্মীরাও বেশিরভাগই ছুটিতে। ফলে, খুব বেশি সংখ্যক মানুষের সংস্পর্শে আসতে পারেননি আক্রান্তরা। তবে এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই মু্ম্বইয়ের চিকিৎসক, নার্স তথা স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য তাজ তাঁদের হোটেলের সিংহদুয়ার খুলে দিয়েছিল। এই পরিস্থিতিতে জনৈক (নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক) পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা বেশ কিছু হাউস কিপিং স্টাফরা কজন চিকিৎসককে ক্যাটারিং করেছিলেন।

[আরও পড়ুন: ‘লকডাউন না হলে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ পেরিয়ে যেত’, দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রকের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement