BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিহার ভোটের সঙ্গেই হবে ৬৪টি আসনের উপনির্বাচন, ঘোষণা কমিশনের

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 4, 2020 3:13 pm|    Updated: September 4, 2020 3:17 pm

An Images

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: করোনা আবহে বিহার ভোট (Bihar Election) পিছবে না বলে আগেই জানিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। এবার একই সময় দেশের বিধানসভা ও লোকসভার ৬৪টি আসনে উপনির্বাচনও (By-election) সেরে ফেলতে চাইছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন (Election Commision)। শুক্রবার তা নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে কমিশন।

 

২৯ নভেম্বরের মধ্যে বিহারের (Bihar) বিধানসভা নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ করতেই হবে। নয়া বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, একই সময়ের মধ্যের দেশের ৬৪টি আসনের উপনির্বাচনও সেরে ফেলবে কমিশন। বিধায়ক বা সাংসদের মৃত্যু কিংবা দলবদলের জেরে দেশের ৬৪টি লোকসভা ও বিধানসভা আসন ফাঁকা পড়ে রয়েছে।  বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে,  মূলত আধা সেনা (CAPF) ও অন্যান্য নিরাপত্তাকর্মীদের মোতায়েন ও অন্যান্য লজিস্টিক সাপোর্টের কথা মাথাই রেখেই এই নির্বাচনগুলি একসঙ্গে করার কথা ভাবা হয়েছে। তবে কবে হবে এই নির্বাচনগুলি, তা এখনও জানানো হয়নি। সঠিক সময় নির্বাচনের দিন ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। কিন্তু করোনা আবহে রাজ্যে নির্বাচন করতে কি আদৌ রাজি হবে রাজ্যগুলি, তা নিয়ে ধন্দ থেকেই যাচ্ছে। 

[আরও পড়ুন : প্রতি বছরই নিতে হবে করোনার ভ্যাকসিন? ICMR-এর প্রধানের দাবি ঘিরে জল্পনা]

প্রসঙ্গত, এবছর নভেম্বরে নির্বাচন হওয়ার কথা বিহারে। কিন্তু যে হারে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে এই পরিস্থিতিতে নির্বাচনের আয়োজন করা ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছেন অনেকেই। মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার অবশ্য চাইছেন, ভোট সময়মতোই হোক। বিজেপিরও তাই দাবি। তবে নীতীশের জোটসঙ্গী লোকজন শক্তি পার্টির নেতা চিরাগ পাসওয়ান এবং গোটা বিরোধী শিবির চাইছে ভোট পিছিয়ে দেওয়া হোক। নির্বাচন পিছনোর দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদনও করা হয়। আবেদনটি করেন অবিনাশ ঠাকুর নামের এক ব্যক্তি। তা খারিজ করে দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। বরং করোনা কালে নির্বাচনের নিয়মে বেশকিছু পরিবর্তন আনছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। 

[আরও পড়ুন : প্রধানমন্ত্রীকে খুনের নির্দেশ! NIA’এর হাতে হুমকি চিঠি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement