১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কোটি টাকা হাতাতে বাবাকে খুন! ফেসবুক থেকেই খুনি ভাড়া করল যুবক

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: July 25, 2022 6:28 pm|    Updated: July 25, 2022 6:44 pm

A Madhya Pradesh Man Gets Father Murdered, Hired Killer On Facebook | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছুদিন আগে সেনা জওয়ান ভাইয়ের মৃত্যুতে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছিলেন প্রৌঢ় বাবা। সেই টাকা হাতাতে ভাড়াটে খুনি দিয়ে বাবাকে খুন করল মধ্যপ্রদেশের (Madhya Pradesh) বাসিন্দা এক যুবক। জানা গিয়েছে, ফেসবুকের মাধ্যমে খুনি ভাড়া করে সে। গুলি করে হত্যা করা হয় প্রৌঢ়কে। পরিকল্পনা মতো কাজ করলেও পুলিশের চোখে ধুলো দিতে পারেনি যুবক ও অন্য দুই অভিযুক্ত। গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের। একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, খুন করা হয়েছে ৫৯ বছরের মহেশ গুপ্তাকে (Mahesh Gupta)। অভিযুক্ত মহেশের ছেলে অঙ্কিত (৩২)। খুনের ঘটনাটি ঘটে ২১ জুলাই রাতে। অঙ্কিত মদ ও অন্যান্য মাদকে আসক্ত ছিল। নেশা করতে বিপুল টাকার প্রয়োজন হত তার। বিবাহিত হলেও সেই টাকা বাবার থেকেই আদায় করত। এর মধ্যে কিছুদিন আগে ১ কোটি টাকা হাতে আসে মহেশ গুপ্তার। সেনায় কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুতে ওই টাকা ক্ষতিপূরণ হিসেবে মিলেছিল। সেই টাকা হাতাতেও তৎপর হয় অভিযুক্ত অঙ্কিত। যদিও টাকা দিতে অস্বীকার করেন প্রৌঢ়।

[আরও পড়ুন: মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে সরব হওয়ার ‘শাস্তি’! বাদল অধিবেশনে সাসপেন্ড ৪ কংগ্রেস সাংসদ]

এরপর বাবাকে খুন করার জন্য ফেসবুকের মাধ্যমে বিহারের ‘অজিত কিং’ গ্যাংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে অঙ্কিত। অর্থের বিনিময়ে খুন ও অপহরণ করে থাকে এই গ্যাংটি। যাবতীয় ষড়যন্ত্রে তাঁকে সাহায্য করে বন্ধু নীতিন লোধী। ১ লক্ষ টাকার চুক্তি হয় ‘অজিত কিং’-এর সঙ্গে। আগাম ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। গ্যাংয়ের প্রধান অজিত সিং নিজে এই কাজ করতে মধ্যপ্রদেশের নির্দিষ্ট এলাকায় আসে। যদিও বাকি টাকার ব্যবস্থা করতে পারছিল না অঙ্কিত। এরপর একটি দেশি বন্দুক জোগাড় করা হয়। সেই বন্দুক দিয়ে ২১ জুলাই রাতে মহেশ গুপ্তাকে তাঁর শোওয়ার ঘরে গুলি করে খুন করা হয়।

[আরও পড়ুন: ‘প্রান্তিক মানুষ দেশের শীর্ষপদে, গণতন্ত্রেই সম্ভব’, রাষ্ট্রপতি পদে শপথ নিয়ে আর কী বললেন দ্রৌপদী?]

পুলিশের বক্তব্য, পরিকল্পনা মাফিক রাতে বউকে নিয়ে আলাদা ঘরে শুয়েছিল অঙ্কিত। খুলে রেখেছিল বাড়ির প্রধান দরজা। ফলে অজিত সহজেই মহেশকে খুন করে। পরদিন নিজেই থানায় যায় অঙ্কিত। বলে, দুষ্কৃতীরা বাবাকে খুন করেছে। ঘটনার তদন্তে নেমে পুরো বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায় পুলিশের কাছে। এর মধ্যে এলাকা ছাড়ে অঙ্কিত। যদিও পুলিশের চোখে ধুলো দিতে পারেনি সে। উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর রেল স্টেশন থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। পিছোড়ে টাউন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অজিত সিং ও নীতিন লোধীকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে