BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রোজা ভেঙে রক্তদান, যমে-মানুষে লড়াইয়ের ময়দানে সাবিত্রীর দেবদূত আশরাফ

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 27, 2019 9:25 pm|    Updated: May 27, 2019 9:25 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধর্মনিরপেক্ষতাই ভারতবর্ষের ঐতিহ্য৷ অথচ সেই ভারতের ভূখণ্ডে সাম্প্রদায়িক হানাহানির খবর সাম্প্রতিককালে প্রায়ই শোনা যায়৷ অনেকেই বলেন, স্বার্থমগ্ন লোকের ভিড়েই নাকি ভরে গিয়েছে গোটা দুনিয়া৷ পরোপকার ভুলেছেন প্রায় সকলেই৷ কিন্তু গোটা দেশের ছবিটা যে একইরকম নয়, তা প্রমাণ করলেন রাজস্থানের আশরাফ৷ রোজা ভেঙে গর্ভবতী মহিলাকে রক্ত দিয়ে নবজীবন দান করলেন তিনি৷ মানবতার কাছে ধর্ম যে কিছুই নয়, তাই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন নবজীবন দাতা৷ 

[ আরও পড়ুন: অমানবিক! চিৎকার করায় ১৮টি সারমেয়কে বিষ খাইয়ে মারল মাছ ব্যবসায়ী]

মুসলমান ধর্মাবলম্বীরা রোজা পালন করছেন৷ রাজস্থানের নাগৌর জেলার বাসিন্দা আশরাফ খানও তার ব্যতিক্রম নন৷ মাসজুড়ে মেনে চলছেন একই নিয়ম৷ পরিকল্পনা ছিল ইদের আগে নিয়মে কোনও ত্রুটি রাখবেন না৷ কিন্তু কাঁটা হয়ে দাঁড়াল সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা একটি ছোট্ট আবেদন৷ কী ছিল সেই আবেদনে? রাজস্থানেরই বাসিন্দা সাবিত্রী দেবীর পরিবারের তরফে করুণ আর্তিই যেন ফুটে উঠেছে আবেদনের প্রতিটি লাইনে৷ সাবিত্রীর হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ খুব কম৷ অথচ তিনি গর্ভবতী৷ মা এবং সন্তান দুজনকে বাঁচানোর জন্য প্রয়োজন শুধু রক্তের৷ বি নেগেটিভ গ্রুপের রক্ত জোগাড় করতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে গিয়েছিলেন পরিজনেরা৷ অথচ রক্ত না পেলে প্রসূতিকে সুস্থ রাখা সম্ভব নয়৷ তাই বাধ্য হয়েই সোশ্যাল মিডিয়াকে বেছে নেন তাঁরা৷ ওই আবেদন পড়েই যেন মন কেঁদে ওঠে আশরাফের৷ মানবতার কাছে ধর্ম তখন তুচ্ছ হয়ে গিয়েছে৷ 

[ আরও পড়ুন: হাজারেরও বেশি মানুষকে খাবার খাইয়ে বিশ্বরেকর্ড, নেটদুনিয়ায় প্রশংসিত যুবক]

আশরাফ এবং ওই মহিলার রক্ত একই বিভাগের৷ তখনই ঠিক করেন রোজা ভেঙে প্রসূতিকে রক্ত তিনি দেবেনই৷ সাবিত্রীর পরিজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন ওই যুবক৷ জানতে পারেন, চুরু জেলার একটি সরকারি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন সাবিত্রী৷ সোজা চলে যান সেই হাসপাতালে৷ রোজা ভেঙে প্রসূতিকে রক্ত দেন৷ আপাতত আশরাফের রক্তে সুস্থ সাবিত্রী৷ ভাল রয়েছে তাঁর গর্ভস্থ সন্তানও৷ খুশি সাবিত্রীর পরিবার৷ কারও উপকার করতে পেরে যেন শান্তি পেয়েছেন আশরাফও৷ ধর্মে ধর্মে ভেদাভেদ যে এই দেশের ঐতিহ্য নয় তাই যেন আরও একবার প্রমাণ করে দিলেন আশরাফ৷ রোজা ভেঙে রক্ত দিতে এগিয়ে এসে নজির গড়লেন তিনি৷ যমে-মানুষে লড়াইয়ের ময়দানে আশরাফই যেন দেবদূত সাবিত্রীর৷ 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement