BREAKING NEWS

১৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

দিল্লি সরকারের গাফিলতিতে নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি পিছিয়েছে, অভিযোগ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

Published by: Paramita Paul |    Posted: January 16, 2020 3:17 pm|    Updated: January 16, 2020 3:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি পিছিয়ে যাওয়া নিয়ে আপ সরকারকে দুষলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। দিল্লির আপ সরকারের গাফিলতির জেরে নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি পিছিয়ে গিয়েছে বলে কটাক্ষ করেছেন তিনি। এবার নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসির সাজা নিয়েও রাজনৈতিক তরজা ঘিরে বেজায় চটেছেন নেটিজেনরা। এ নিয়েও আপের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

আদালতের কাছে বারবার প্রাণভিক্ষার আরজি খারিজ হয়েছে নির্ভয়াকাণ্ডের অন্যতম দোষী মুকেশের। মুকেশ রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আরজি জানিয়েছে। সেই আরজি এখনও খারিজ করেননি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। আইনজীবী মহলের দাবি, সেই পরিপ্রেক্ষিতেই ২২ জানুয়ারি তাদের ফাঁসি হওয়া সম্ভব নয়। এদিন শুনানি চলাকালীন দিল্লি সরকারের আইনজীবী আরও জানান, অক্ষয় কুমার সিং ও পবন গুপ্তা এখনও আদালতে ‘কিউরেটিভ’ আরজি জানায়নি। এমনকী রাষ্ট্রপতির কাছেও প্রাণভিক্ষার আরজি জানায়নি। ফলে এরপর তারা যদি ফের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানায়, সাজার দিনক্ষণ ফের পিছিয়ে যাবে। মূলত আইনি জটিলতার জেরেই ফাঁসির দিনক্ষণ পিছিয়ে যেতে পারে বলে মনে করছিল ওয়াকিবহাল মহল। সরকারি আইনজীবীরা জানিয়েছিলেন, বুধবারও যদি প্রাণভিক্ষার আরজি খারিজ হয়, তাহলেও বিভিন্ন নিয়মকানুনের জন্য ১৪ দিন সময় দিতে হবে। ফলে আইনি গেঁড়োয় ২২ তারিখ ফাঁসি কোনওভাবেই সম্ভব হবে না।

[আরও পড়ুন : সন্ত্রাসবাদ খতম করতে ৯/১১-এর পর মার্কিন পদক্ষেপই মডেল, সুর চড়ালেন রাওয়াত]

ফাঁসির দিনক্ষণে এই বিলম্বের জন্য দিল্লি সরকারেকে দায়ী করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, “নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসি বিলম্ব হওয়ার জন্য একমাত্র দায়ী দিল্লি সরকার। তাদের গাফিলতিতে এই প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়েছে।” প্রকাশ জাভেড়করের প্রশ্ন, “গত আড়াই বছরে কেন দিল্লি সরকার চারজনকে প্রাণভিক্ষা চাওয়ার জন্য নোটিশ পাঠাল না?” যদিও দিল্লি সরকার দাবি করেছে তাঁরা এ বিষয়ে বিদ্যুৎ বেগে কাজ করছে। উপরাজ্যপাল প্রাণভিক্ষার আরজি খারিজ করে দিয়েছেন। তাঁরা সেই ফাইল কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে।     

An Images
An Images
An Images An Images