২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

NRC বিতর্ক এড়াতে পদক্ষেপ, ‘প্রোটেক্টেড এরিয়া’র আওতায় আনা হল অসমকে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: September 4, 2019 11:26 am|    Updated: September 4, 2019 5:27 pm

An Images

মণিশংকর চৌধুরি, গুয়াহাটি: এনআরসি নিয়ে বিতর্ক এড়াতে কড়া পদক্ষেপ সরকারের। এবার অসমকেও প্রোটেক্টেড এরিয়া ক্যাটেগরির আওতায় আনল কেন্দ্র। বিদেশমন্ত্রকের তরফে এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে। ফলে, জম্মু ও কাশ্মীরের পর দেশের দ্বিতীয় বড় রাজ্য হিসেবে প্রোটেক্টেড এরিয়া ক্যাটেগরিতে চলে এল অসম। উত্তরপূর্বের কয়েকটি রাজ্য এই ক্যাটেগরির আওতায় থাকলেও অসমের মতো এত কড়াকড়ি করা হয় না।

[আরও পড়ুন: বাইকে এসে হার ছিনতাইয়ের চেষ্টা, অবিশ্বাস্য দক্ষতায় চোর ধরল মা-মেয়ে! দেখুন ভিডিও]

প্রোটেক্টেড এরিয়া ক্যাটেগরির অন্তর্গত এলাকায় সংবাদমাধ্যমের বিচরণে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়। বিদেশ থেকে আসা কোনও সাংবাদিক বিনা অনুমতিতে এই এলাকায় প্রবেশ করতে পারে না। প্রোটেক্টেড এরিয়া ঘোষণা করার ফলে অসমেও আর কোনও বিদেশি সাংবাদিক বিনা অনুমতিতে পা রাখতে পারবে না। যে সমস্ত বিদেশি সাংবাদিক ইতিমধ্যেই অসম চত্বরে রয়েছেন তাদেরও বেরিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের এক মহিলা সাংবাদিক অসম ছাড়তে রাজি না হওয়ায় একপ্রকার জোর করেই তাঁকে গুয়াহাটি বিমানবন্দর থেকে দিল্লিগামী বিমানে তুলে দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার জেরে বেশ ক্ষুব্দ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা।

[আরও পড়ুন: ‘এক দেশ এক রেশন কার্ড’-এর কাজে এত পিছিয়ে কেন? রাজ্যকে তোপ কেন্দ্রের]

এদিকে, এনআরসির জেরে অসমজুড়ে বিক্ষিপ্ত অশান্তির ছবি ধরা পড়ছে। বরাক থেকে ব্রহ্মপুত্র, অসমের কোনও অংশই নয়া তালিকায় সন্তুষ্ট নয়। একটি অংশের দাবি, তালিকায় আরও নাম থাকা উচিত ছিল। আবার অপর অংশের দাবি, নয়া এনআরসি তালিকা ত্রুটিপূর্ণ। অনেক বৈধ নাগরিকও এই তালিকায় ঠাঁই পায়নি। বিক্ষোভ রুখতে কড়া পদক্ষেপ করছে প্রশাসনও। গোটা অসমে বিপুল পরিমাণ নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে। ছোটাখাট বিক্ষোভ দমন করা হচ্ছে। এদিকে, এনআরসির প্রতিবাদে আগামী ৬ সেপ্টেম্বর ১২ ঘণ্টার অসম বনধের ডাক দিয়েছে। একাধিক ছাত্র সংগঠন ও রাজনৈতিক দল। নেতৃত্বে রয়েছে অল অসম স্টুডেন্ট উইনিয়ন। উল্লেখ্য, এনআরসি তালিকা প্রকাশের পরই সরকারের ভূমিকায় অসন্তোষ দেখিয়েছে একাধিক সংগঠন। তাদের মধ্যে অগ্রগণ্য ছিল এই অল অসম স্টুডেন্ট ইউনিয়ন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement