৭  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কর্ণাটক হাই কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ, হিজাব বিতর্কে শীর্ষ আদালতে মুসলিম ল বোর্ড

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: March 28, 2022 1:38 pm|    Updated: March 28, 2022 3:59 pm

AIMPLB moves Supreme Court against Karnataka High Court Hijab verdict | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আবারও হিজাব বিতর্ক ঘিরে বাড়ছে উত্তাপ। এবার কর্ণাটক হাই কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) দ্বারস্থ হয়েছে মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড। তাদের দাবি, ‘ভুল ব্যাখ্যার’ প্রেক্ষিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করার রায় দিয়েছে কর্ণাটক হাই কোর্ট।

[আরও পড়ুন: পরীক্ষা বয়কটকারীদের আর সুযোগ নয়, হিজাব বিতর্কে মুসলিম পড়ুয়াদের হুঁশিয়ারি কর্ণাটকের]

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, হিজাব নিষেধাজ্ঞার রায়কে সোমবার চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছে মুসলিম ল বোর্ড (AIMPLB)। একইসঙ্গে কর্ণাটক হাই কোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদলতে পিটিশন ফাইল করেছেন মুনিসা বুসরা ও জালিসা সুলতানা ইয়াসিন নামের দুই মহিলা। এই বিষয়ে মুসলিম ল বোর্ডের যুক্তি, ‘ভুল ব্যাখ্যার’ প্রেক্ষিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করার রায় দিয়েছে কর্ণাটক হাই কোর্ট। একইসঙ্গে সংগঠনটির বক্তব্য, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইউনিফর্মের নামে কোনও ব্যক্তি বিশেষের ধর্মীয় পোশাক (হিজাব) পরিধানে বাধা দেওয়া ন্যায়বিচারের পরিপন্থী।

উল্লেখ্য, মার্চের ১৫ তারিখ হিজাব বিতর্কে ঐতিহাসিক রায় দেয় কর্ণাটক হাই কোর্ট। আদালত স্পষ্ট জানায়, ইসলাম ধর্মাচরণে হিজাব অপরিহার্য নয়। শিক্ষাঙ্গনে হিজাব নিষিদ্ধ করার বিরুদ্ধে যে সমস্ত আবেদন জমা পড়েছিল, তা খারিজ করে দেয় আদালত। তারপরই এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে একাধিক পিটিশন জমা পড়ে। এই বিষয়ে একটি পিটিশনের শুনানিতে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট জানিয়েছিল, হিজাব পরিধানের সঙ্গে পরীক্ষার কোনও সম্পর্ক নেই। 

প্রসঙ্গত, বলে রাখা ভাল, কর্ণাটক (Karnataka) সরকার গত ৫ ফেব্রুয়ারি একটি নির্দেশিকা জারি করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল। তার পর থেকেই সেরাজ্যে হিজাব ইস্যুতে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিশেষ করে উদুপি জেলায় বিক্ষোভের জেরে স্কুল-কলেজগুলি রীতিমতো রণক্ষেত্রের আকার ধারণ করেছিল। লাগাতার প্রতিবাদের জেরে বেশ কয়েকদিন স্কুল-কলেজও বন্ধ রাখতে হয় কর্ণাটক সরকারকে। সরকারের সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করেন কয়েকজন মুসলিম পড়ুয়া। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করা যাবে না, এই মর্মে একাধিক মামলা করা হয়েছিল। সরব হয় বিরোধী দলগুলিও। 

[আরও পড়ুন: দেশের কোভিড পরিস্থিতির আরও উন্নতি, লকডাউন চিনের আরও এক বড় শহরে

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে