BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাঝ আকাশে জ্বালানি ভরল রাফালে, প্রযুক্তির চূড়ান্ত নিদর্শন ফরাসি যুদ্ধবিমানের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 28, 2020 6:21 pm|    Updated: July 28, 2020 6:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফরাসি প্রযুক্তি ও মারণ ক্ষমতার চূড়ান্ত নিদর্শন রাফালে যুদ্ধবিমান। শত্রুর বুকে কাঁপুনি ধরিয়ে রাত পোহালেই ভারতের জমিতে অবতরণ করবে এমন পাঁচটি যুদ্ধবিমান। তার আগেই মঙ্গলবার নিজের ক্ষমতার পরিচয় দিয়ে মাঝ আকাশে ফরাসি ট্যাঙ্কার বিমান থেকে কয়েক হাজার লিটার জ্বালানি পৌঁছে গেল রাফালের পেটে। বিশ্বে হাতে গোনা কয়েকটি দেশের কাছেই রয়েছে এই প্রযুক্তি।

[আরও পড়ুন: চিনকে বেকায়দায় ফেলে ইন্দোনেশিয়াকে ব্রহ্মস মিসাইল দেবে ভারত!]

সোমবার ফ্রান্সের বায়ুসেনা ঘাঁটি থেকে ভারতের উদ্দেশে রওনা দেয় পাঁচটি রাফালে যুদ্ধবিমান (Rafale Jet)। ভারতে আসার আগে পাইলটারা সাময়িক বিরতি নেবেন আবু ধাবির আল ধাফরা বিমানঘাঁটিতে। মাঝ আকাশে দু’বার জ্বালানি ভরা হবে ফাইটার জেটগুলিতে (Rafale Jet)। আল ধাফরায় নামার আগে মঙ্গলবার, মাঝ আকাশে রাফালের পেটে জ্বালানি ভরার ছবি টুইটারে পোস্ট করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে, রাফালে যুদ্ধবিমানগুলিতে জ্বালানি ভরছে ফরাসি বায়ুসেনার A330 Phoenix MRTT জ্বালানিবাহী ট্যাঙ্কার বিমান। সমরাস্ত্র বিশেষজ্ঞদের মতে, মাঝ আকাশে বিমানে জ্বালানি ভরা অত্যন্ত জটিল ও বিপজ্জনক কাজ, একচুল এদিক ওদিক হলেই ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা। বিমানের জ্বালানিতে চোখের পলক না ফেলতেই আগুন ধরে যেতে পারে। ফলে গোটা প্রক্রিয়ায় বিস্ফোরণের সম্ভাবনা থেকে যায়। এছাড়া, ট্যাঙ্কার বিমান ও যুদ্ধবিমানগুলির গতি ও উচ্চতা নির্দিষ্ট মানে বজায় রাখতে দু’টি বিমানের চালকদের মধ্যে অত্যন্ত সূক্ষ্ম সম্পর্ক বজায় রাখতে হয়।

উল্লেখ্য, রাফালে যুদ্ধবিমান ওড়ানোর জন্য ফ্রান্স থেকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে দেশের ১২ জন পাইলটকে। এয়ারবাস ৩৩০ মাল্টিরোল ট্যাঙ্কার ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফ্ট উড়িয়ে কীভাবে মাঝ আকাশে জ্বালানি ভরতে হবে সেই প্রশিক্ষণ নিয়েছেন পাইলটরা। রাফাল যুদ্ধবিমান ওড়ানোর পদ্ধতি ও মাঝ আকাশে জ্বালানির ভরার প্রক্রিয়া জানতে আরও ৩৬ জন বায়ুসেনার পাইলটের নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে। তাঁরাও ফ্রান্সে গিয়ে প্রশিক্ষণ নেবেন। এদিকে, অনেক উঁচু থেকে হামলা চালানো, যুদ্ধজাহাজ ধ্বংস করা, মিসাইল নিক্ষেপ এমনকি পরমাণু হামলা চালানোর ক্ষমতাও রয়েছে রাফালের। বিমানটিকে আরও শক্তিশালী করার জন্য ‘মেটিওর’ এবং ‘স্কাল্প’ নামে দুটি মিসাইলও যোগ করা হতে পারে বলে জানিয়েছে বায়ুসেনা। সব ঠিক থাকলে বুধবার দেশে পৌঁছবে অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমানগুলি (Rafale Jet)। হরিয়ানার আম্বালা বায়ুসেনা ঘাঁটিতে ‘গোল্ডেন অ্যারো’ ১৭ নম্বর স্কোয়াড্রনের অন্তর্ভুক্ত করা হবে পাঁচটি রাফালেকে।

[আরও পড়ুন: তিব্বতে তৎপর লালফৌজ, উপগ্রহ চিত্রে প্রকাশ্যে ‘ড্রাগনে’র অভিসন্ধি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement