BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রবল বৃষ্টি আর ঝোড়ো হাওয়ায় লন্ডভন্ড মুম্বই, ফোনে উদ্ধবকে সাহায্যের আশ্বাস মোদির

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 6, 2020 10:08 am|    Updated: August 6, 2020 6:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১০৭ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া। উপরন্তু একনাগাড়ে প্রবল বৃষ্টি। প্রবল বর্ষণের জেরে একপ্রকার লন্ডভন্ড বাণিজ্যনগরী। এককথায়, দিশেহারা দেশের ব্যস্ততম শহর মুম্বই (Mumbai)। আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ধেয়ে আসতে পারে অতি ভারী বৃষ্টি, তার জেরেই মুম্বই-সহ কয়েকটি জায়গায় লাল সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দপ্তর। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ১৫ বছর আগের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে পারে। ২০০৫ সালের মতোই এবার মুম্বইয়ে বন্যার পরিস্থিতির পূর্বাভাস রয়েছে। মৌসম ভবন সূত্রে খবর, ১৯৭৪ সালের পর এই প্রথম একদিনে এত বৃষ্টি হয়েছে। মুম্বইয়ের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্ধব ঠাকরেকে (Uddhav Thackeray) ফোন প্রধানমন্ত্রী মোদির (Narendra Modi)।

এমন ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই প্রকৃতির রোষে বিপর্যস্ত মায়ানগরী। বিগত কয়েক দিন ধরেই লাগাতার বৃষ্টি। থামার নামই নেই! বুধবার বিকেলে আবার তার দোসর ঝোড়ো হাওয়া। ঘণ্টায় ১০৭ কিমি বেগে দমকা হাওয়া বয়ে যাওয়ার জেরে একাধিক এলাকায় গাছ ভেঙেছে। যার ফলে বিদ্যুৎহীন বিস্তীর্ণ এলাকা। সূত্রের খবর, মুম্বইয়ের প্রধান দুই লেকের জল উপচে পড়েছে। বিভিন্ন জলমগ্ন এলাকায় আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারের জন্য ইতিমধ্যেই ময়দানে নেমে পড়েছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী (NDRF)। ঝোড়ো হাওড়ার তাণ্ডবে উড়ে গিয়েছে ডি ওয়াই পাটিল স্টেডিয়ামের শেড। এমনকী, জওহরলাল নেহরু বন্দরের ভারী ক্রেন পর্যন্ত হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে যাওয়ার খবর মিলেছে। রিপোর্ট বলছে, গত ৪৬ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে এবছর মুম্বইয়ের বৃষ্টি। একদিনে ৩৩১.৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। 

[আরও পড়ুন: হঠাৎ ইস্তফা কাশ্মীরের উপরাজ্যপাল জিসি মুর্মুর, পরিবর্তে এলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী]

বুধবার অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পরই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অতিবর্ষণের জেরে মুম্বই ও তার পার্শবর্তী এলাকার পরিস্থিতি সম্পর্কে উদ্ধবের থেকে বিশদে খোঁজখবর নেন। এবং পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্য সরকারকে সমস্ত ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

আপাতত মুম্বইয়ের এই বিপদ কাটার কোনও লক্ষণ নেই বলেই জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। আরও দিন কয়েক ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে। যে কারণে উদ্বেগ আরও বাড়ছে প্রশাসনের অন্দরে। বেশ কয়েকটি এলাকায় খোলা হয়েছে অস্থায়ী ত্রাণ শিবির। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষকে বাড়ির বাইরে না বেরনোর আবেদন জানিয়েছে উদ্ধব সরকার। মুম্বই পুলিশের তরফেও একই আবেদন করা হয়েছে। যে কোনও প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য পুরসভাকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে।

[আরও পড়ুন: আহমেদাবাদের কোভিড হাসপাতালে বিধ্বংসী আগুন, পুড়ে মৃত্যু অন্তত ৮ রোগীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement