৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচন ২০১৯-এর ভোটগ্রহণ পর্ব মিটেছে৷ ২৩ মে ফলাফল ঘোষণার আগে, রবিবার সন্ধ্যায় প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন এক্সিট পোলের রেজাল্ট৷ আর তাতে যেমন মুখে চওড়া হাসি ফুটেছে মোদি-শাহদের, তেমনই মাথায় চিন্তার ভাঁজ পড়েছে বিরোধীদের৷ তাই পরবর্তী ঘুঁটি সাজাতে সোমবার সকাল থেকেই তৎপর হয়েছেন বিরোধীরা৷ রাজধানী থেকে উত্তরপ্রদেশ হয়ে বাংলার উদ্দেশে ছুটতে দেখা গিয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ড়ুকে৷ তবে থেমে নেই শাসকদলও৷ জানা গিয়েছে, রণকৌশল সাজাতে মঙ্গলবার এনডিএ জোটের সমস্ত সদস্যদের সঙ্গে নৈশভোজ সারতে চলেছেন অমিত শাহ৷ নয়াদিল্লিতে আয়োজিত সেই ভোজের আসরে আমন্ত্রণ পেয়েছেন মন্ত্রিসভার সমস্ত সদস্য৷ এবং বিজেপির জাতীয় ও রাজ্যস্তরের শীর্ষ নেতারা৷

[ আরও পড়ুন: রোজা ভাঙতে জল চেয়ে মিলল খাবার, বিমানসেবিকার মানবিকতায় আপ্লুত যাত্রী]

রবিবার সন্ধ্যা থেকে এক্সিট পোলের যে ট্রেন্ড দেখা গিয়েছে তাতে একটা বিষয় স্পষ্ট যে, আরও একবার রাজধানীর তখতে বসতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদি৷ মোদি-শাহ জুটির উপর ভর করে আবারও দেশে সরকার গড়তে চলেছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট৷ কিন্তু প্রশ্ন হল, এবারও কী গতবারের মতো একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বিজেপি? গতবারের মতো এবারও কী ২৭২ আসনের গণ্ডি পার করতে পারবে পদ্মশিবির? নাকি জোট শরিকদের ভরসায় সরকার গড়তে হবে তাঁদের? এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২৩ মে পর্যন্ত৷ তবে বারবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহরা বলে এসেছেন যে, এবার একক ভাবে ৩০০-র বেশি আসন পাবে বিজেপি৷ এবং এনডিএ ৩৫০-এর বেশি আসন পেয়ে কেন্দ্রে সরকার গড়বে৷ রবিবার এক্সিট পোলের ফলাফল ঘোষণা হতে যে আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা গেল বিজেপির মুখপাত্র জিভিএল নরসীমা রাওয়ের গলায়৷ তিনি জানান, এক্সিট পোলের ফলাফলই বলছে দেশবাসী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অসাধারণ নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রাখতে চলেছেন৷ এবং এই ফলাফল বিরোধীদের কুৎসার জবাব৷

[ আরও পড়ুন: আইনি সুরক্ষার সময়সীমা বাড়ানোর জন্য রাজীব কুমারের আর্জি খারিজ সুপ্রিম কোর্টে ]

একদিকে এক্সিট পোলের ফলাফলে শাসক শিবির যখন উৎফুল্ল, তখন এই সমস্ত বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিরোধী শিবির৷ সমস্ত এক্সিট পোলের বিরোধিতা করে রবিবারই টুইট করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি অভিযোগ করেন, “আমি এক্সিট পোলের গুজবে বিশ্বাস করি না। আসলে এই গুজব ছড়ানোর ফাঁকে হাজার হাজার ইভিএম মেশিন বদলানোর চেষ্টা চলছে। এটাই আসলে নরেন্দ্র মোদির গেম প্ল্যান। আমি সমস্ত বিরোধীদের কাছে ঐক্যবদ্ধ, দৃঢ় ও সাহসী থাকার আবেদন করছি। আমরা একসঙ্গেই এই যুদ্ধে লড়াই করব। এই ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করব।” একইভাবে সোমবার সকাল থেকেই জোটের প্রস্তুত শুরু করেছেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ড়ু৷ ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে তাঁর৷ তবে আশ্চর্যজনক ভাবে তাঁকে এড়িয়ে গিয়েছেন বিএসপি নেত্রী মায়াবতী৷ দলীত নেত্রীর এই পদক্ষেপকে গুরুত্ব দিয়েই বিচার করছে রাজনৈতিক মহল৷ তাঁদের মতে, এক্সিট পোলের ফলাফল ঘোষণার পর সম্ভবত ধীরে চলো নীতি গ্রহণ করতে চাইছেন মায়া৷ ২৩ মে’র পরই পরবর্তী কৌশল ঠিক করতে চাইছেন তিনি৷ এবং সেকারণেই বিরোধীদের বৈঠক এড়িয়ে গিয়েছেন তিনি৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং