BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

সেনার মনোবল বাড়াতে লাদাখে সেনাপ্রধান, দেখা করলেন আহত জওয়ানদের সঙ্গে

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: June 23, 2020 10:11 pm|    Updated: June 23, 2020 10:11 pm

army-chief-visits-leh-hospital-meets-soldiers-injured-in-clash

সোম রায়, নয়াদিল্লি: মঙ্গলবার দুপুরে লাদাখ সীমান্তে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার (LAC) পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যান সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নারাভানে (MM Naravane)। লেহ-তে গিয়েই সেখানকার হাসপাতালে ভরতি জখম সেনাদের দেখতে হাসপাতালে পরিদর্শন করেন তিনি। কথা বলেন হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গেও।

দু’দিনের লেহ সফরে গিয়েছেন সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। সীমান্তের ঠিক কী পরিস্থিতি রয়েছে, তা বোঝার জন্য গ্রাউন্ড কম্যান্ডারদের সঙ্গে কথা বলার কথা তাঁর৷ পাশাপাশি, গত ১৫ জুন চিনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত জওয়ানদের দেখতে লেহ-এর সেনা হাসপাতালেও যান তিনি৷ সেনাবাহিনীর তরফে ট্যুইট করে সেকথা জানানো হয়েছে৷ প্রসঙ্গত এ দিনই সেনার তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, কম্যান্ডার স্তরে দীর্ঘ ১১ ঘণ্টার বৈঠকের পর ভারত-চিন দু’পক্ষই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে পিছু হটার বিষয়ে ঐক্যমতে পোষণ করেছে৷ গত ১৫ জুন ভারত এবং চিনা সেনার সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা জওয়ান শহিদ হওয়ার পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি৷ যদিও উত্তেজনা প্রশমনে আলোচনা শুরু করে দু’ পক্ষই৷ তাতেই বরফ গলার ইঙ্গিত মিলেছে৷ তবে প্রয়োজনে চিনকে যোগ্য জবাব দিতে যাবতীয় প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছিল সেনাবাহিনী৷ এই পরিস্থিতিতে বাহিনীর মনোবল বাড়াতেই লাদাখে গেলেন সেনাপ্রধান৷

[আরও পড়ুন:স্কুলের ফি দেওয়ার ক্ষমতা ছিল না বাবার, চাওয়ালার মেয়ে আজ বায়ুসেনার ফাইটার পাইলট]

অন্যদিকে তিন বাহিনীর প্রধান বিপিন রাওয়াতও এদিন লাদাখের আশেপাশে ফরওয়ার্ড বেসগুলিতে গিয়ে বাহিনীর জওয়ানদের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের মনোবল বৃদ্ধি চেষ্টা করেন৷

[আরও পড়ুন:ওষুধ যাচাইয়ের আগে Coronil-এর কোনও প্রচার নয়, পতঞ্জলিকে নোটিস ধরাল কেন্দ্র]

গতকালই দুই বাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল পর্যায়ের বৈঠক হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে এগারোটায় বৈঠক শুরু হয়। টানা ১১ ঘণ্টা ধরে চলে সেই বৈঠক। ভারতের হয়ে নেতৃত্ব দেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং এবং চিনের তরফে নেতৃত্ব দেনা দক্ষিণ জিনজিয়াং মিলিটারি রিজিওনের কম্যান্ডর লিউ লিন। এদিন সকালে সেনাবাহিনীর তরফে বলা হয়, গতকালের বৈঠক হয়েছে আন্তরিক ও ইতিবাচক। পরে সেনা সূত্রে জানা যায় সীমান্তে সংঘর্ষ প্রশমিত করার ব্যাপারে দুই বাহিনী ঐক্যমত হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীর প্রধানের লেহ সফর তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে