BREAKING NEWS

৩ মাঘ  ১৪২৭  রবিবার ১৭ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘রাজনৈতিক স্বার্থে নোংরা খেলা চলছে’, ফাঁসির দিন পিছতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন নির্ভয়ার মা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: January 17, 2020 7:49 pm|    Updated: January 17, 2020 7:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “তারিখের পর তারিখ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সুবিচার এখনও পাওয়া গেল না। শুধু দোষীদের দিকটাই দেখা হচ্ছে। আর ভুগতে হচ্ছে আমাদের।” চার ধর্ষকের ফাঁসির দিনক্ষণ বদলে যাওয়ায় এভাবেই ক্ষোভ উগরে দিলেন নির্ভয়ার মা আশাদেবী।

নির্ভয়ার ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ডের দিন ধার্য হয়েছে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি। শুক্রবার ফাঁসির নয়া দিন ঘোষণা করে পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। ওইদিন সকাল ৬টায় তিহার জেলে চারজনকে একসঙ্গে ফাঁসির দড়িতে ঝোলানো হবে। এর আগে জানানো হয়েছিল, দোষীদের ফাঁসি হবে ২২ জানুয়ারি। কিন্তু একাধিক আইনি জটিলতায় তা পিছিয়ে যায়। অপরাধী মুকেশ সিং মৃত্যুদণ্ডের রায়ের বিরোধিতায় সুপ্রিম কোর্টে কিউরেটিভ পিটিশন ফাইল করে। রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আরজিও জানায়। তার জেরেই পিছিয়ে যায় ফাঁসি কার্যকর করার প্রক্রিয়াটি। যা নিয়ে তীব্র হতাশা প্রকাশ করেছিলেন নির্ভয়ার মা। এমনকী প্রকাশ জাভরেকর এবং আম আদমি পার্টির মধ্যে রাজনৈতিক তরজা নিয়েও ক্ষুব্ধ তিনি। বিজেপি নেতা জাভড়েকরের অভিযোগ, কেজরি সরকারের গড়িমসিতেই সাজার দিন পিছচ্ছে। একই সুর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির গলায়। যদিও এমন অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে আম আদমি পার্টি। তবে এসবের মধ্যে নির্যাতিতা মেয়ের জন্য এখনও সুবিচার না মেলায় মেজাজ হারিয়েছেন আশাদেবী।

[আরও পড়ুন: তিহারে আত্মহত‌্যার চেষ্টা নির্ভয়ার দোষী বিনয় শর্মার]

এদিন পাতিয়ালা হাউস কোর্টের ঘোষণার পরই কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। বলেন, “দোষীরা যা চায়, সেটাই হচ্ছে। তারিখের পর তারিখ পাচ্ছি। আমাদের আইন প্রক্রিয়ায় দোষীদের কথাই বেশি ভাবা হচ্ছে। যারা আমার মেয়ের সঙ্গে এমনটা করল (ধর্ষণ), তাদের হাজারো অপশন দেওয়া হচ্ছে। তাহলে আমাদের কি কোনও অধিকার নেই? এতদিন পর্যন্ত আমি রাজনীতির কথা বলিনি। এবার বলতে চাই, যারা ২০১২ সালে এই ঘটনার প্রতিবাদে শামিল হয়েছিল, তারাই আমার মেয়ের মৃত্যু নিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার জন্য নোংরা খেলা খেলছে।” দেশের বিচার ব্যবস্থা নিয়ে চূড়ান্ত অসন্তুষ্ট আশাদেবী।

এদিকে, নিজেকে ফের নাবালক বলে দাবি করে আজই সুপ্রিম কোর্টে কিউরেটিভ পিটিশন ফাইল করে পবন শর্মা। সেই আবেদন খারিজ হয়েছে। তার জেরেই ১৪ দিন পর অর্থাৎ পয়লা ফেব্রুয়ারি ফাঁসি দেওয়ার দিনক্ষণ ঘোষণা করে পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। তবে তারপরও রাষ্ট্রপতির কাছে পবনের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানানোর সম্ভাবনা থাকছে। তাতেও কিছুটা সময় পিছোতে পারে বলে অনুমান। তাই যতক্ষণ না ফাঁসির দড়ি ধর্ষকদের গলায় পরানো হচ্ছে, ততক্ষণ নিশ্চিন্ত হতে পারছেন না আশাদেবী।

[আরও পড়ুন: পালিয়েও শেষরক্ষা হল না, কানপুর থেকে ধৃত মুম্বই বিস্ফোরণে প্যারোলে মুক্ত অপরাধী ‘ডঃ বম্ব’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement