BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় ‘২৮ বছর পরেও মিলল না সুবিচার’, দাবি বামেদের

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 30, 2020 8:41 am|    Updated: October 1, 2020 12:47 pm

An Images

১৯৯২ সালে  গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল অযোধ্যার বাবরি মসজিদ। নাম জড়ায় একাধিক বিজেপি নেতানেত্রীর। লখনউয়ে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে ২৮ বছর পুরনো সেই মামলার রায়দান আজ। ভাগ্য নির্ধারণ হবে প্রাক্তন উপপ্রধানমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবানী, মুরলী মনোহর যোশী, উমা ভারতী, কল্যান সিং-সহ ৩২ জন অভিযুক্তের। রায়দান সম্পর্কিত সমস্ত লাইভ আপডেট (Babri Masjid Demolition Case) :

বিকেল ৫.৩০: বাবরি মসজিদ ভাঙার দিনটা ছিল দেশের দ্বিতীয় স্বাধীনতা অর্জনের দিন।  মত বাংলার বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের। 

বিকেল ৫.০০: বাবরি নিয়ে সিবিআই আদালতের রায়ের বিরোধিতা সিপিআইএমের। এই রায়কে হাস্যকর বলে চিহ্নিত করল পলিটব্যুরো। 

বেলা ৩.২৭: ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বরের মতোই অপমানিত বোধ করছি। প্রতিক্রিয়া আসাউদ্দিন ওয়াইসির। 

বেলা ১.৩০: সত্যের জয় হয়েছে, টুইটে প্রতিক্রিয়া যোগী আদিত্যনাথের। কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভোট ব্যাংকের রাজনীতি করার অভিযোগ। 

বেলা ১.২০: এই রায় রাম জন্মভূমি নিয়ে আমার এবং বিজেপির ধর্মীয় বিশ্বাসকে অটুট রাখল, প্রতিক্রিয়া লালকৃষ্ণ আডবানীর। 

বেলা ১.০৩: আদালতের রায়কে স্বাগত জানালেন রামজন্মভূমি মামলার পিটিশনার ইকবাল আনসারি। 

বেলা ১.০০: লালকৃষ্ণ আডবানীর বাড়ি পৌঁছলেন বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ। 

বেলা ১২.৫৫: ঘটনার ভিডিও ফুটেজে কোনও কারিকুরি করেনি সিবিআই, আদালত এমনটাই জানিয়েছে বলে দাবি মণীষ ত্রিপাঠির। 

বেলা ১২.৫০: আইনজীবী মণীষ ত্রিপাঠির দাবি, আদালত জানিয়েছে মসজিদ ভাঙার পিছনে আরএসএস, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কোনও ভূমিকা ছিল না।

বেলা ১২.৪০: এই রায় দীর্ঘ বিবাদের অবসান ঘটাল, মত ২৫ অভিযুক্তের আইনজীবী  কে কে মিশ্রর। 

বেলা ১২.৩০: বাবরি মসজিদ ভাঙা পূর্ব পরিকল্পিত নয়, বেকসুর খালাস পেলেন ৩২ জন অভিযুক্ত।

বেলা ১২.০০: ছ’জন ছাড়া বাকি সমস্ত অভিযুক্তই আদালতে উপস্থিত। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হাজিরা দিলেন আডবানী, মুরলী মনোহর যোশী, উমা ভারতীরা। 

সকাল ১১.১০: উত্তরপ্রদেশে জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা।

সকাল ১১.০৫: ভগবান রামের জন্য মৃত্যু বরণ করতেও রাজি জানালেন বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন সাংসদ রাম বিলাস বেদন্তি। 

সকাল ১১.০০: মসজিদ ভাঙার অভিযোগ স্বীকার করে নিলেন শিব সেনার উত্তর ভারতের তৎকালীন প্রধান জয় ভগবান গোয়েল। 

সকাল ১০.৫০: মসজিদ ধ্বংসের অভিযোগ অস্বীকার করলেন বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার। 

সকাল ১০.৪০: আজ রায় ঘোষণার পরই অবসর নেবেন বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার যাদব। 

সকাল ১০.০৫: আদালতে এলেন সাক্ষী মহারাজ ও বিনয় কাটিয়ার। 

সকাল ৯.৫০: বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার যাদব আদালতে পৌঁছলেন।

সকাল ৯.৪১: লখনউয়ের সর্বত্র কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে।

সকাল ৯.০০: ২০১৯ সালেই অবসর নিতেন বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার যাদব। এই মামলার রায়দানের জন্য তাঁর অবসরের দিনক্ষণ পিছিয়ে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। 

সকাল ৮.৩০: উত্তরপ্রদেশে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা। আদালত চত্বরে সকাল থেকেই চলছে তল্লাশি। কড়া পাহাড়া। 

সকাল ৮.২০: ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে হাজিরা দেবেন লালকৃষ্ণ আডবানী, মুরলী মনোহর যোশী, উমা ভারতী ও কল্যান সিং।

সকাল ৮.০০: আজ সকাল ১০টায় রায়দান পর্ব শুরু। সিবিআই আদালতের বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার যাদব রায় শোনাবেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement