১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সৌদিতে পাক যুবকের মারে ভেন্টিলেশনে ছেলে, দেশে ফেরাতে কেন্দ্রের কাছে কাতর আরজি মায়ের

Published by: Suparna Majumder |    Posted: September 18, 2020 10:51 am|    Updated: September 18, 2020 10:51 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের নাগরিকের মারে গুরুতর আহত হয়ে সৌদির হাসপাতালে ভরতি ছেলে। গত ২৩ দিন ধরে ভেন্টিলেশনে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। ১০ দিন আগে ছেলের শেষ খবর পেয়েছিলেন। এবার আহত ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে কেন্দ্র সরকারের সাহায্য চাইলেন অসহায় মা। হায়দরাবাদের (Hyderabad) বাসিন্দা ওই মহিলার নাম খাতিজা বেগম (Khatija Begum)।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে খাতিজা বেগম জানান, তাঁর ছেলের নাম শায়েক সাদিক (Shaik Sadiq)। গত তিন বছর ধরে সৌদি আরবের (Saudi Arabia) একটি গুদামে মজদুরের কাজ করেন। ১৫ জুলাই ছেলের এজেন্ট মারফত তিনি জানতে পারেন হাসপাতালে ভরতি শায়েক। তাঁর শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। এক পাকিস্তানি নাগরিক তাঁকে বেধড়ক মারধর করেছে। সেই কারণে শায়েককে জেড্ডার (Jeddah) হাসপাতালে ভরতি করতে হয়েছে। ভেন্টিলেশনে রয়েছেন শায়েক। মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। খাতিজা জানান ১০ দিন আগে পর্যন্ত ছেলের খবরাখবর পেয়েছেন তিনি। তারপর আর এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। ছেলের কোনও খবর হায়দরাবাদে থেকে তিনি পাচ্ছেন না।

[আরও পড়ুন: দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পেরল ৫২ লক্ষ, সুস্থ হয়েছেন সক্রিয় রোগীর ৪ গুণেরও বেশি]

কী কারণে প্রবাসী ভারতীয় নাগরিককে ওই পাক নাগরিক এভাবে মেরেছে সেই সম্পর্কে এখনও পর্যন্ত কিছু জানা যায়নি। তবে তা নিয়ে এখন ভাবিত নন খাতিজা। অসহায় মায়ের কাতর আরজি, কোনওভাবে তাঁর ছেলেকে দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হোক। এর জন্য কেন্দ্র সরকারের সাহায্য চেয়েছেন তিনি। তার আগে ছেলে কেমন আছে তা জানতে চান খাতিজা। সেজন্য কেন্দ্রকে রিয়াধ (Riyadh) ও জেড্ডার ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। অনুরোধ জানিয়েছেন, দূতাবাসের কোনও প্রতিনিধি যেন হাসপাতালে গিয়ে তাঁর ছেলের খোঁজ নেন।  

[আরও পড়ুন: তামিলনাড়ুতে ফের পুলিশের মারে যুবকের মৃত্যু! মেরে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পরিবারের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement