৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘সুস্থতার হার বাড়ছে, কমছে মৃত্যুহার’, ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে দেশবাসীকে ধন্যবাদ মোদির

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 26, 2020 11:44 am|    Updated: July 26, 2020 3:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে ফের করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সহযোগিতার জন্য দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। তাঁর দাবি, সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত এবং দেশবাসীর সহযোগিতার ফলে দেশে সুস্থতার হার বাড়ছে। এবং অন্য অনেক দেশের তুলনায় কমছে মৃত্যুহার। তবে, এখনও করোনার বিরুদ্ধে লড়াই শেষ হয়নি। আমাদের এখনও আগের মতোই সতর্ক থাকতে হবে।

‘মন কি বাত’ (Mann Ki Baat) অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বললেন, “গত কয়েকমাসে যেভাবে আপনারা লড়াই করেছেন, তা অনেক বিশেষজ্ঞদের বহু আশঙ্কাকে ভুল প্রমাণ করেছে। আজ আমাদের দেশে সুস্থতার হার অন্য বহু দেশের তুলনায় অনেক বেশি। আর মৃত্যুহারও অন্য অনেক দেশের তুলনায় কম। আমরা লক্ষ লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচাতে পেরেছি।” পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে সতর্কও করেছেন। তাঁর কথায়,”আমাদের মনে রাখতে হবে, করোনা এখনও আগের মতোই মারাত্মক। তাই এখনও সমস্তরকম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ করতে হবে। আমাদের সবসময় ২ গজ দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা, হাত ধোয়ার মতো কাজগুলি অভ্যাসে পরিণত করতে হবে।” প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, ” আগামী স্বাধীনতা দিবসে আমাদের করোনা থেকে মুক্তির এবং আত্মনির্ভরতার শপথ নিতে হবে।”

[আরও পড়ুন: একদিনে করোনা পরীক্ষার রেকর্ড গড়ল ভারত, নতুন আক্রান্ত প্রায় সাড়ে ৪৮ হাজার]

মাস্ক পরার ক্ষেত্রে একটি বাস্তব সমস্যার কথা এদিন উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলছেন,”অনেক সময় আমাদের মাস্ক পরতে অসুবিধা হয়। আমরা কারও সঙ্গে কথা বলার সময় মাস্ক খুলে ফেলি। যখন সবচেয়ে বেশি দরকার তখনই আমাদের মুখে মাস্ক থাকে না। আপনাদের কাছে অনুরোধ, যখন মাস্ক পরে থাকতে অসুবিধা হবে, দয়া করে একবার আমাদের চিকিৎসকদের কথা ভাববেন। কীভাবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা মাস্ক, PPE পরে কাজ করতে হয়ে করোনা যোদ্ধাদের, সেই কথা মনে করবেন।”

[আরও পড়ুন: করোনার উপসর্গ নিয়ে চাঞ্চল্যকর সমীক্ষা এইমসের! প্রশ্নে রোগীদের শনাক্তকরণ পদ্ধতি]

প্রধানমন্ত্রী বলছেন, সতর্ক থাকার পাশাপাশি আমাদের ধীরে ধীরে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডও শুরু করতে হবে। মন কি বাতে তিনি বললেন, “একদিকে আমাদের পুরো সতর্কতার সঙ্গে করোনার বিরুদ্ধে লড়তে হবে। অন্যদিকে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যও শুরু করতে হবে। সঠিক মানসিকতা সব সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করছে। আমাদের এই আশাব্যঞ্জক মানসিকতাই আগামী দিনে এই লড়াইয়ে জিততে সাহায্য করবে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement