BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাকিস্তান থেকে ফোনে খুনের হুমকি, পুলিশের দ্বারস্থ বিজেপি সাংসদ সাক্ষী মহারাজ

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 11, 2020 5:05 pm|    Updated: August 11, 2020 5:05 pm

An Images

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ বিপাকে উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) উন্নাওয়ের (Unnao) বিজেপি সাংসদ সাক্ষী মহারাজ (Sakshi Maharaj)। পরপর দু’‌বার ফোন করে তাঁকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, বোমা বিস্ফোরণে তাঁকে মেরে ফেলা হবে। আর এই ফোনগুলো এসেছে পাকিস্তানের (Pakistan) কোনও নম্বর থেকে। পুলিশের কাছে অভিযোগে এমনটাই জানিয়েছেন সাংসদ।

[আরও পড়ুন: “প্রতিভা থাকলে বিকাশ হবেই”, নেপোটিজম প্রসঙ্গে মুখ খুললেন আশা ভোঁসলে]

সদর কোতোয়ালির ইন্সপেক্টর দীনেশচন্দ্র মিশ্রকে লেখা চিঠিতে সাক্ষী মহারাজ জানিয়েছেন, দু’‌টি পাকিস্তানি নম্বর থেকে এই হুমকি ফোন পেয়েছেন তিনি। সেই ফোনে পাকিস্তানি জঙ্গি সংগঠনের সদস্য বলে দাবি করে এক ব্যক্তি সাক্ষী মহারাজকে জানায়, ওই ব্যক্তি এবং তার শাগরেদরা সাংসদের উপর সর্বক্ষণ নজর রাখছে। ঠিক সময়ে বোমা মেরে তাঁকে হত্যা করা হবে। এখানেই শেষ নয়, ওই হুমকি ফোনে সাক্ষী মহারাজকে নাকি বলা হয়েছে, কাশ্মীর (Kashmir) খুব শীঘ্রই পাকিস্তানের অধীনে চলে যাবে। এছাড়া রাম মন্দিরের ভূমিপুজো থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi), স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah), আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সম্পর্কেও খারাপ মন্তব্য করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন আনল রাশিয়া, প্রয়োগ করা হল পুতিনকন্যার শরীরে]

পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে সাক্ষী মহারাজ দ্রুত তাঁর নিরাপত্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য আবেদন জানিয়েছেন। এদিকে, এই প্রসঙ্গে পুলিশের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানান, ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। বর্তমানে ওয়াই ক্যাটেগরির সুরক্ষা পেয়ে থাকলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে সাংসদের নিরাপত্তার ব্যবস্থাপনা আবারও খতিয়ে দেখা হবে। 

এদিকে, মঙ্গলবার সকালে উত্তরপ্রদেশের পশ্চিমে বাগপত (baghpat) জেলায় খুন হন এক বিজেপি (BJP) নেতা। আখের খেত থেকে গুলিবিদ্ধ দেহ উদ্ধার হয়। নাম সঞ্জয় খোকর। জানা গিয়েছে, তিনি বিজেপির জেলা সভাপতি ছিলেন। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের দাবি, বাড়ির কাছে এক মাঠে প্রাতঃভ্রমণ করার সময় তিনি খুন হয়েছেন। সঞ্জয়ের দেহে বেশ কয়েকটি গুলি বিঁধেছে। খেতের মধ্যেই তাঁর রক্তাক্ত দেহটি দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁরাই পুলিশকে খবর দেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement