৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিন দুই আগেই তামিলনাড়ুর দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকে মোদি ঘোষণা করেছিলেন তামিলনাড়ুতে যে কোনও দলের সঙ্গে জোট করতে প্রস্তুত বিজেপি। দু’দিন পরেই দাক্ষিণাত্যের রাজ্যটির শাসকদল এআইএডিএমকে-র সঙ্গে আসনরফা চূড়ান্ত করে ফেলল গেরুয়া শিবির। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্রের খবর, তামিলনাড়ুর ৪০ আসনে ৫০-৫০ ফর্মুলায় লড়বে দুই দল। এআইএডিএমকে একাই লড়বে ২০ টি আসনে। অন্যদিকে, বিজেপি এবং তার পুরনো জোটসঙ্গীরা লড়বে ২০ টি আসনে।

[কংগ্রেসের ‘হাত’ ছেড়েই জোট ঘোষণা মায়া-অখিলেশের, স্বাগত জানালেন মমতা]

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে জয়ললিতার নেতৃত্বে ৩৯ টি আসনের মধ্যে ৩৭টিতেই জিতেছিল এআইএডিএমকে। ১ টি আসন জিতেছিল বিজেপি এবং একটি জিতেছিল তাদের জোটসঙ্গী পিএমকে। কিন্তু জয়ললিতার মৃত্যুর পর এডিএমকের ভগ্নদশা। প্রায় টুকরো টুকরো হয়ে গিয়েছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত ‘আম্মা’র দল। এবারে তাই অনেকটা সমঝোতা করে মাত্র ২০ টি আসন নিয়েই সন্তুষ্ট তারা। অন্যদিকে, বিজেপির ভাগের ২০ টি আসনের মধ্যে ভাগ দেওয়া হবে এনডিএরে পুরনো শরিক ডিএমডিকে এবং পিএমকে-কে। বিজেপির পীযূষ গোয়েলের সঙ্গে ইতিমধ্যেই জোট ফর্মুলা নিয়ে আলোচনা সেরে ফেলেছেন এআইএডিএমকের নেতারা। তাছাড়া জোট প্রক্রিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছেন অরুণ জেটলিও।

[বাংলা দখলে প্রস্তুত বিজেপি, দিল্লি থেকে হুঙ্কার অমিতের]

আসলে, দক্ষিণের এই রাজ্যটিতে এখনও সেভাবে জমি তৈরি করতে পারেনি গেরুয়া শিবির। অন্যদিকে, কংগ্রেসের সঙ্গে ডিএমকের জোট প্রায় নিশ্চিত। তাই, কংগ্রেসকে টক্কর দিতে গেলে জোটসঙ্গীর প্রয়োজন হবে গেরুয়া শিবিরেরও। সেকারণেই মোদির এই জোটবার্তা বলে মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে, সাম্প্রতিক একাধিক নির্বাচনী সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে আগামী লোকসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া কঠিন হবে বিজেপি তথা বর্তমান এনডিএ-র পক্ষে। তামিলনাড়ুতেও নিশ্চিহ্ন হওয়ার পথে এআএডিএমকে। তাই আলোচনার মাধ্যমে একসঙ্গে চলার পথেই সওয়াল করল দুই দল। খুব শীঘ্রই সরকারিভাবে জোট ঘোষিত হবে বলে সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং