৩০ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আরও ৫০ বছর কংগ্রেসের সভাপতি থাকুন রাহুল গান্ধী, কটাক্ষ বিজেপি নেতার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 28, 2019 8:08 pm|    Updated: May 28, 2019 8:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আরও ৫০ বছর কংগ্রেসের প্রধান থাকুন রাহুল গান্ধী। তাতে বিজেপির লাভই হবে। মঙ্গলবার কংগ্রেস সভাপতিকে কটাক্ষ করে এই মন্তব্যই করলেন অসমের উপমুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “রাহুল গান্ধী আরও ৫০ বছর কংগ্রেসের প্রধান থাকলে বিজেপিরই লাভ হবে। তবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে গণতন্ত্র। কারণ, দেশে কোনও শক্তিশালী বিরোধী না থাকাটা গণতন্ত্রের ক্ষেত্রে মঙ্গলজনক নয়।”

[আরও পড়ুন-‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস’ প্রতিশ্রুতির জন্য মোদিকে শুভেচ্ছা প্রণবের]

তিনি আরও বলেন, “রাহুল গান্ধী যদি কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে থেকে যান তাহলে বিরোধীদের ক্ষমতা দখলের কোনও আশা দেখতে পাচ্ছি না। বিজেপির দিক থেকে দেখতে গেলে তাদের পক্ষে এটা লাভদায়ক। সমস্ত গণতান্ত্রিক দেশেই শক্তিশালী বিরোধীদের দরকার হয়। কিন্তু, রাহুল গান্ধী যতদিন কংগ্রেস ও বিরোধীদের মুখ হিসেবে থাকবেন ততদিন এদেশে বিরোধীদের কোনও আশা নেই। ক্ষমতা দখল দূরের কথা শক্তিশালী বিরোধী পর্যন্ত হয়ে উঠতে পারবে না তারা। তবে যদি রাহুল গান্ধী না থাকে তাহলে বিরোধীদের জীবনে সুদিন আসতেই পারে। আমরাও একটা শক্তিশালী বিরোধী পেতে পারি।”

[আরও পড়ুন- জল্পনার অবসান, বিজেপিতে যোগ দিলেন মুকুলপুত্র শুভ্রাংশু]

সম্প্রতি হয়ে যাওয়া কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন রাহুল। লোকসভা ভোটে খারাপ রেজাল্টের জন্যই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু, তাঁকে বাধা দেয় অন্য কংগ্রেস নেতারা। সোনিয়া এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী তাঁকে সিদ্ধান্ত পুর্নর্বিবেচনার আর্জি জানান। কিন্তু, এই বিষয়ে রাহুল কারওর কথাই শুনছেন না বলে সূত্রের খবর।

এই নিয়ে কংগ্রেসের মধ্যে যখন টানাপোড়েন চলছে। ঠিক তখনই রাহুলকে কটাক্ষ করলেন ১৪ বছর ধরে কংগ্রেস করা হিমন্ত বিশ্বশর্মা। ২০১৫ সালে অসমের বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপি যোগ দিয়েছিলেন হিমন্ত। তারপর থেকে তাঁর পরিকল্পনা অনুযায়ী চলে উত্তর-পূর্বের সমস্ত রাজ্যে ভাল ফল করেছে বিজেপি। এই কারণে বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব তাঁকে উত্তর-পূর্বে অমিত শাহের থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বলে অভিহিত করেছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement