BREAKING NEWS

২ বৈশাখ  ১৪২৮  শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘করোনা চলে গিয়েছে, মাস্ক পরতে হবে না,’ অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার মন্তব্যে বিতর্ক

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: April 4, 2021 4:04 pm|    Updated: April 4, 2021 4:19 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে নতুন করে চিন্তা বাড়িয়েছে করোনার (Covid-19) দ্বিতীয় ঢেউ। ফের এক লক্ষের কাছে চলে গিয়েছে দৈনন্দিন আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে শনিবার বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন খোদ অসমের (Assam) স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা BJP নেতা হিমন্ত বিশ্বশর্মা (Himanta Sarma)। অসমে করোনা নেই। তাই মাস্ক পরারও প্রয়োজন নেই। আর তাঁর এই মন্তব্যের পরই রীতিমতো বিতর্ক দেখা দিয়েছে। বিরোধীরাও এহেন মন্তব্যে সমালোচনা করেছেন। যদিও তাতেও নিজের বক্তব্য থেকে একটুও  সরেননি হিমন্ত। বরং টুইট করে নিজের বক্তব্যের সাফাইও দিয়েছেন।

শনিবারই হিমন্ত বিশ্বশর্মার মুখ থেকে ওই বিতর্কিত মন্তব্যটি শোনা গিয়েছিল। একটি সর্বভারতীয় অনলাইন মিডিয়াকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে হিমন্ত বলেন, “অসমে করোনা নেই। তাই কারওর মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই। প্রয়োজন পড়লে আমিই সাধারণ মানুষকে বলব।” এদিকে, এই ভিডিওটি সামনে আসার দিনই দেশজুড়ে প্রত্যহ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ফের ৯০ হাজার পার করে ফেলে। এরপরই বিরোধীরা সমালোচনায় মুখর হন। নেটদুনিয়াতেও ভাইরাল হয়ে যায় বিজেপি মন্ত্রীর বক্তব্য। তীব্র কটাক্ষের মুখেও পড়তে হয় তাঁকে। অনেকে আবার মজাও ওড়ান। টুইট করে কটাক্ষ করেন শিবসেনার মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদীও।

[আরও পড়ুন: ভ্যাকসিন নিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের অনীহা! টিকাকরণ নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের]

যদিও এত সমালোচনা-কটাক্ষের মুখেও নিজের বক্তব্য থেকে সরেননি হিমন্ত। বরং রবিবার টুইটে লেখেন, “মাস্ক নিয়ে আমার করা মন্তব্যে যাঁরা মজা করছে, তাঁদের উচিত একবার অসমে আসা। তাহলেই দেখতে পাবেন মহারাষ্ট্র, দিল্লি, কেরলের তুলনায় আমরা কতটা ভালভাবে করোনাকে রুখতে সক্ষম হয়েছি। পাশাপাশি আমাদের অর্থনীতিও আগের তুলনায় ভাল জায়গায় পৌঁছেছে। এই বছর আমরা বিহু উৎসবও দুর্দান্তভাবে আয়োজন করব।”

[আরও পড়ুন: বিশ্বের ৭৫% ভাইরাস ঘটিত রোগ প্রাণীবাহিত, কেন একথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement