১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

দীপাঞ্জন মণ্ডল, নয়াদিল্লি: একেবারে দড়ি টানাটানি খেলা। কেউ এক কদম এগোচ্ছে, তো প্রতিপক্ষ দু কদম আগে চাল দিচ্ছে। রাজীব কুমার-সিবিআই স্নায়ুযুদ্ধ একেবারে তুঙ্গে পৌঁছে গিয়েছে। সোমবার সকালেই বারাসত আদালতে গিয়ে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার আগাম জামিনের আবেদন করেছেন। তা গৃহীত হওয়ার পর আবেদনপত্রের প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে সিবিআইকেও। মঙ্গলবার সেই মামলার শুনানি। এর ঘণ্টাখানেক কাটতে না কাটতেই আরেক ধাপ এগিয়ে গেল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। একতরফা শুনানি আটকাতে সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিল করার পথে সিবিআই।

[আরও পড়ুন: ‘অচিরেই টুকরো হবে পাকিস্তান’, ইমরানের পরমাণু হুমকির পালটা জবাব রাজনাথের]

সারদা মামলার তদন্ত গুটিয়ে আনতে তৎকালীন তদন্তকারী অফিসার রাজীব কুমারকে হেফাজতে পেতে মরিয়া কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তার জন্য সমস্তরকম আঁটঘাঁট বেঁধেই নামছেন তাঁরা। আইনি এবং পদ্ধতিগত বিষয়ে কোনও ফাঁক রাখতে চান না তদন্তকারীরা। তাই রাজীব কুমার যেখানে হাজিরা এড়িয়ে বারাসত আদালতে আগাম জামিনের আবেদন জানাচ্ছেন, তখন বসে নেই সিবিআইও। বারাসত আদালতে মঙ্গলবার মামলাটির শুনানি। কিন্তু রাজীব কুমারের মতো দুঁদে আইপিএস অফিসার এই সময়টুকু ব্যয় না করে সোজা শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন সেই একই আবেদন নিয়ে। এই বিষয়টি আঁচ করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী অফিসাররা আরও শক্তিশালী চাল দিচ্ছেন। সিবিআই আধিকারিকরা সোজা সুপ্রিম কোর্টেই চলে গিয়েছেন। সেখানে একতরফা শুনানি আটকাতে ক্যাভিয়েট দাখিল করার জোর প্রস্তুতি চলছে। এবিষয়ে দক্ষ আইনজীবীদের পরামর্শ নেওয়া হচ্ছে বলে সূত্রের খবর।

সূত্রের আরও খবর, প্রয়োজনে কলকাতার প্রাক্তন নগরপালের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। ঠিক যেমনটি হয়েছিল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের ক্ষেত্রে।আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় সিবিআইয়ের গ্রেপ্তারি এড়াতে দিল্লি হাই কোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করেছিলেন পি চিদম্বরম। তাতে আদালত জানিয়েছিল, কোনও বিশেষ প্রাধান্য দিয়ে মামলা শোনা হবে না। আবেদনকারীর তালিকা অনুযায়ী সময়মতো শুনানি হবে। আর এই সময়ের ফাঁক গলেই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে তাঁর বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেন সিবিআই আধিকারিকরা। এরপর চিদম্বরম ফের আগাম জামিনের মামলাটির উল্লেখ করলে, দিল্লি হাই কোর্ট জানায়, এই মামলার কোনও ভিত্তি নেই। তবে রাজীব কুমারের ক্ষেত্রে এই মামলার গতিপ্রকৃতি কোন দিকে গড়াবে, তা বোঝা এই মুহূ্র্তে দুষ্কর। তবে রাজীব কুমার এবং সিবিআই, স্নায়ুর যুদ্ধে যে একে অপরকে টেক্কা দিতে সদা তৎপর, তা ক্রমশই স্পষ্ট হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: পুজোর মধ্যেই রেওয়ারি স্টেশন ও একাধিক মন্দির উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিল জইশ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং