BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র সরকারি কর্মীদের বেতনে কাটছাঁট, বাতিল মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধিও

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 18, 2020 2:15 pm|    Updated: April 18, 2020 2:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা যুদ্ধে অংশ নিতে মন্ত্রী, সাংসদদের বেতন কমেছে। এবার কোপ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীদের উপরেও। মার্চ মাস থেকে আগামী এক বছরের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের একদিনের বেতন যাচ্ছে PM-CARES তহবিলে। আর বছরে দু’বার ডিএ বৃদ্ধি থেকে আপাতত বঞ্চিত হচ্ছেন পেনশনভোগীরাও। কেন্দ্রের রাজস্ব বিভাগের তরফে এমনই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

মারণ জীবাণুর মোকাবিলায় শক্তিশালী কোনও অস্ত্র নেই এই মুহূর্তে। চিকিৎসা ব্যবস্থা উন্নতির মধ্যে দিয়েই সংক্রমণ রুখে দেওয়া সম্ভব। তার জন্য প্রয়োজন বিপুল অর্থ। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি নিজেদের মতো ত্রাণ তহবিল গড়ে সেই অর্থ জোগাড়ের চেষ্টা করছে। তারই অংশ হিসেবে এর আগে মন্ত্রী এবং সাংসদদের বেতনের ৩০ শতাংশ কেটে তা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়া হয়েছে। এক বছরের জন্য এই নিয়মই লাগু থাকবে। তাতে অনেকটা আর্থিক সাহায্য হবে বলে হিসেব কষে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। লাঘব হবে করোনা মোকাবিলায় ব্যয়ভার। এবার একই নিয়ম চালু হল কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্যেও। তবে ৩০ শতাংশ নয়, তাঁদের মাসিক বেতন থেকে একদিনের অর্থ নেওয়া হবে PM-CARESএ। চলতি মার্চ থেকে ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত প্রতি মাসেই তাঁদের একদিনের বেতন দিতে হবে এই তহবিলে। COVID-19 যুদ্ধে যে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীরা সরাসরি যুক্ত, তাঁরাও বাড়তি সাহায্য করবেন ফি মাসে একদিনের বেতন দিয়ে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনেই ফিরিয়ে আনা হবে ভিনরাজ্যে আটকে থাকা মানুষদের, ঘোষণা অসম সরকারের]

কেন্দ্রের রাজস্ব বিভাগের তরফে দেওয়া নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, মহামারি মোকাবিলায় আপাতত সরকারি কর্মী ও পেনশনভোগীদের মহার্ঘ্যভাতাও বাড়ানো হচ্ছে না। বছরে সাধারণত দু’বার এই সুবিধা পেয়ে থাকেন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী ও অবসরপ্রাপ্তরা। জানুয়ারি ও অক্টোবরে নির্দিষ্ট হারে ডিএ বৃদ্ধি হয়। তবে এবার পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। দেশজুড়ে মহামারির দাপটে সরকারি কোষাগারে চাপ বাড়ছে। লকডাউনে বন্ধ শিল্প-বাণিজ্য। ফলে আয়ের রাস্তাও আপাতত বন্ধ। সবমিলিয়ে এই বিপুল চাপ সামলাতে কেন্দ্র ভার দিল কর্মীদেরই। আগামী এক বছর ধরে তাঁদের একদিনের মাসিক বেতন PM-CARESএ দান করলে কিছুটা সুরাহা হবে বলে আশা। এপ্রিলে প্রাপ্ত বেতনেই একদিনের টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে। ২০২১এর মার্চ পর্যন্ত একই হারে তা কাটা হবে। সাময়িক অসুবিধা হলেও, দেশের এই সংকটে এই সাহায্য করতে অবশ্য এগিয়ে এসেছেন সকলেই।

[আরও পড়ুন: ‘তদন্তে সবরকম সহযোগিতা করব’, দিল্লি পুলিশকে চিঠি মৌলানা সাদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement