১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বিয়ন্ত সিংয়ের হত্যাকারী শিখ জঙ্গি রাজওয়ানার মৃত্যুদণ্ড রদ করল কেন্দ্র

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 12, 2019 10:49 am|    Updated: November 12, 2019 10:49 am

Centre commutes death sentence of ex-Punjab CM Beant Singh’s assassin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কমল পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিয়ন্ত সিংয়ের হত্যাকারী জঙ্গি বলবন্ত সিং রাজওয়ানার সাজা। শিখ জঙ্গি সংগঠন ‘বব্বর খালসা’র সদস্য রাজওয়ানার মৃত্যুদণ্ড রদ করে তা যাবজ্জীবন করল কেন্দ্র সরকার।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই রাজওয়ানার মৃত্যুদণ্ড রদের সিদ্ধান্তের কথা পাঞ্জাব সরকারকে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। উল্লেখ্য, ১৯৯৫ সালের ৩১ আগস্ট গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে নিহত হন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা বিয়ন্ত সিং। তাঁর হত্যার নেপথ্যে ছিল শিখ জঙ্গি সংগঠন বব্বর খালসা। ওই সংগঠনেরই সদস্য ছিল পাঞ্জাব পুলিশের কনস্টেবল বলবন্ত সিং রাজওয়ানা। এদিকে, TADA মামলায় ১৮ থেকে ২৮ বছর পর্যন্ত জেলে সাজ ভোগ করা বেশ কয়েকজন শিখ বন্দিকে মুক্ত করার সিদ্ধান্তও নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। গত সেপ্টেম্বর মাসেই রাজওয়ানার মৃত্যুদণ্ড রদ করার খবর পাওয়া গিয়েছিল। তবে সেবারে কোনও ‘নোটিফিকেশন’ জারি করেনি কেন্দ্র। এবার রীতিমতো নির্দেশিকা জারি করে তা জেল প্রশাসন ও পাঞ্জাব সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে।

পাঞ্জাবে সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করার কৃতিত্ব দেওয়া হয় বিয়ন্ত সিংকে। বব্বর খালসা-সহ একাধিক খলিস্তানি জঙ্গি সংগঠনের কোমর ভেঙে দিয়েছিলেন তিনি। তবে এর মূল্য প্রাণ দিয়ে মেটাতে হয় তাঁকে। চণ্ডীগড়ে আত্মঘাতী জঙ্গি দিলাওয়ার সিংয়ের হামলায় প্রাণ হারান বিয়ন্ত সিং-সহ ১৬ জন। সেখানেই দ্বিতীয় আত্মঘাতী জঙ্গি হিসেবে ছিল রাজওয়ানা। দিলাওয়ারের হামলা বিফল হলে ফের বিস্ফোরণর ঘটানোর কথা ছিল তার। তবে দ্বিতীয় ধামাকার প্রয়োজন হয়নি। ঘটনার পর রাজওয়ানা-সহ বেশ কয়েকজন শিখ জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শুরু হয় মামলা।

২০০৭ সালে রাজওয়ানা ও জগতার সিং হাওয়ারকে হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেয় বিশেষ আদালত। ২০১২ সালে রাজওয়ানার ফাঁসির সাজা কার্যকর করার কথা থাকলেও রাজনৈতিকভাবে প্রভাবশালী শিখ ধর্মীয় সংগঠন ‘শিরোমণি গুরুদ্বার প্রবন্ধক কমিটি’-র আবেদনে তা কার্যকর করা হয়নি।

[আরও পড়ুন: মন্দির-মসজিদের আশ্চর্য সহাবস্থান, সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে অযোধ্যা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে