BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় ফের বিপাকে চিদম্বরমরা! বাবা-ছেলের বিরুদ্ধে চার্জশিট ইডির

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 3, 2020 10:41 am|    Updated: June 3, 2020 10:41 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় আরও বিপাকে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম (P Chidambaram) ও তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরম (Karti Chidambaram)। অবশেষে বাবা-ছেলের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। পি চিদম্বরমের গ্রেপ্তারির প্রায় ৯ মাস পর চার্জশিট পেশ করল ইডি। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ১০ লক্ষ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সোমবার দিল্লির বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক অজয় কুমারের এজলাসে একটি ই-চার্জশিট পেশ করে ইডি। তবে, এখনই এই চার্জশিটের ভিত্তিতে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী বা তাঁর ছেলে তথা কংগ্রেস সাংসদ কার্তি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করা যাবে না। লকডাউন উঠলে চার্জশিটের একটি প্রত্যয়িত কপি আদালতে পেশ করতে হবে। যার প্রতিলিপি পাঠাতে হবে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী এবং তাঁর ছেলের দপ্তরেও। লকডাউনের পর আদালতের কাজকর্ম স্বাভাবিক হলে এই মামলার শুনানি শুরু হবে। ইডি সূত্রের খবর, এই মামলার মূল অভিযুক্ত ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়ের বয়ানের ভিত্তিতে চিদম্বরমদের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করা হয়েছে। যদিও, চার্জশিটের কপি হাতে না পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাননি চিদম্বরমরা।

[আরও পড়ুন: ‘লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন বহু চিনা সেনা’, অবশেষে স্বীকার করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী]

অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন আইএনএক্স মিডিয়ায় প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বেনিয়ম করার অভিযোগ রয়েছে চিদম্বরমের বিরুদ্ধে। ২০০৭ সালে ইউপিএ জমানায় তিনি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকার সময় আইএনএক্স
মিডিয়ায় ৩০৫ কোটির বিদেশি অনুদানের অনুমোদন দেওয়া হয়। আদৌ সেই অনুমোদন নিয়ম মেনে নেওয়া হয়েছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সেসময় প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অর্থমন্ত্রকের অধীনস্থ সংস্থা ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রোমোশন বোর্ডের অনুমতি নিতে হত। অভিযোগ, আইএনএক্স মিডিয়ার ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের জন্য কোনও অনুমোদন নেওয়া হয়নি। এই মামলায় গতবছর ৫ সেপ্টেম্বর পি চিদম্বরমকে গ্রেপ্তার করা হয়। ১০৬ দিন তিহার জেলে কাটানোর পর জামিন পান তিনি। তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরমও জামিনেই আছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement