১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘রাজীব গান্ধী বাবরি মসজিদের তালা খুলেছিলেন কি না, জানে না কংগ্রেস’, কটাক্ষ সিন্ধিয়ার

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 17, 2020 10:44 pm|    Updated: August 17, 2020 11:14 pm

Congress itself doesn't know if Rajiv Gandhi opened the locks of Babri Masjid or not: Jyotiraditya Scindia

ফাইল ফটো

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ রাম মন্দির (Ram Mandir) ইস্যুতে নিজের পুরনো দলকে কটাক্ষ করলেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া (Jyotiraditya Scindia)। তাঁর নিশানায় কার্যত মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ (Kamal Nath0) এবং কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর। সিন্ধিয়ার কথায়, রাজীব গান্ধী বাবরি মসজিদের তালা খুলেছিলেন কি না, তা জানে না কংগ্রেসই।

[আরও পড়ুন: করোনা কালে ভারতের পাশে থাকায় ধন্যবাদ, আরব আমিরশাহীকে বন্ধুত্বের বার্তা বিদেশমন্ত্রীর]

বিজেপিতে যোগদানের পর সোমবার প্রথমবার ইন্দোরে (Indore) গিয়েছিলেন সিন্ধিয়া। বিমানবন্দরে তাঁকে আনতে গিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তুলসী সিলাভাত এবং সাংসদ শংকর লালওয়ানি। এছাড়াও ছিলেন বিজেপি সমর্থকরা। গত ৫ আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমিপুজোর দিন কমলনাথ বলেছিলেন, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীই বাবরি মসজিদের তালা প্রথম খুলেছিলেন। ইন্দোরে সেই প্রসঙ্গেই সিন্ধিয়া বলেন, ‘‘‌একদিকে তিনি (‌কমলনাথ)‌ বলছেন রাজীব গান্ধী বাবরি মসজিদের তালা খুলেছিলেন। অন্যদিকে শশী থারুর বলছেন, না তিনি তালা খোলেননি। কংগ্রেস নিজেই জানে না, তাঁদের নেতৃত্ব কী করেছে আর কী করেনি।’‌’

এর পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশে করোনা (Corona) ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির জন্যও দায়ী করেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথকেই। পাশাপাশি প্রশংসা করেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানেরও। বলেন, ‘‌‘‌শপথ নেওয়ার পর শিবরাজজি প্রতিদিন ১৮ থেকে ২০ ঘণ্টা কাজ করে গোটা পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণে এনেছেন।’‌’ এর পাশাপাশি কমলনাথ সরকারের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগও আনেন। বলেন, ‘‌‘‌এখানে যা দুর্নীতি হতে দেখেছি, নিজের ২০ বছরের রাজনৈতিক কেরিয়ারে কখনই তা দেখিনি। এই কারণেই ওই ২২ জন বিধায়ক একদম সঠিক পদক্ষেপ করেছে।’‌’‌‌‌

[আরও পড়ুন: BSF-এর ডিজি পদে এবার প্রাক্তন সিবিআই কর্তা রাকেশ আস্থানাকে নিয়োগ করল কেন্দ্র]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে