BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উত্তপ্ত ভারত-চিন সীমান্ত, দেশের পাশে দাঁড়াতে বন্ধ হল রাম মন্দির নির্মাণের কাজ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 19, 2020 8:25 pm|    Updated: June 19, 2020 9:18 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে লকডাউনের মধ্যেই নিয়মবিধি মেনে অযোধ্যায় শুরু হয়েছিল রাম মন্দির নির্মাণের কাজ। কিন্তু ভারত-চিন সীমান্ত উত্তপ্ত হওয়ায় আপাতত নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

মে মাসের শেষ সপ্তাহে অস্থায়ী মন্দিরে রাখা রামের মূর্তিতে পুজো করেছিলেন রাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও রাম জন্মভূমি ন্যাসের প্রধান মহন্ত নিত্যগোপাল দাস। তারপর মন্দির তৈরির কাজ শুরুর কথা ঘোষণা করা হয়। কিন্তু দেশের বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই নির্মাণ কাজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় ট্রাস্ট। তাদের তরফে এক কর্তা জানান, ইন্দো-চিন সীমান্তে এখন প্রবল উত্তেজনা। তাই বর্তমানে দেশের পাশে দাঁড়ানো বেশি জরুরি। আর সেই জন্যই আপাতত নির্মাণ কাজ বন্ধ।

[আরও পড়ুন: ‘আমরা এখনও অন্ধকারে রয়েছি’, লাদাখ নিয়ে সর্বদল বৈঠকে কেন্দ্রকে তোপ সোনিয়ার]

দিন তিনেক আগেই লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার হাতে শহিদ হন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। লাঠিতে কাঁটাতার জড়িয়ে মারধর করা হয়েছিল সেনাদের। আহতও হন বেশ কয়েকজন। পালটা দেয় ভারতীয় সেনাও। তারপর থেকে দুই পক্ষেই উত্তাপের আঁচ আরও বেড়েছে। আর এমন পরিস্থিতিতে রাম মন্দির বানানোর কথা ভাবতে চাইছে না ট্রাস্ট। নির্মাণ কাজ কবে শুরু হবে, তা পরিস্থিতি বিচার করে পরে সরকারিভাবে ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দির (Ram Mandir) তৈরির নির্দেশ দেয়। আর মসজিদ গড়ার জন্য বিকল্প ৫ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দিতে বলে। রাম মন্দির তৈরির জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে একটি ট্রাস্টও গঠন করতে বলে। এপ্রিলেই নিমার্ণ কাজ শুরুর কথা থাকলে করোনা ও লকডাউনের জন্য তা পিছিয়ে গিয়েছিল। মে মাসে তা শুরুর কথা ঘোষিত হলেও আপাতত ফের মন্দির তৈরির কাজ বন্ধ রাখা হল। বর্তমানে চিনা পণ্য বয়কটের দাবিতে সরব হয়েছে বিভিন্ন হিন্দু সংগঠন।

[আরও পড়ুন: তেতাল্লিশ নয়, গালওয়ান সংঘর্ষে ভারতীয় জওয়ানদের হাতে নিহত ১৫ চিনা সেনা!]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement