২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রাস্তায় শুয়েই ঘুমোচ্ছেন পুলিশকর্মীরা, করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ নেটদুনিয়ার

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 24, 2020 6:49 pm|    Updated: April 24, 2020 6:52 pm

Cops sleeping on ground, pics viral on social media

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাইরে বেরলে আপনাকে ছুঁতে পারে করোনা ভাইরাস। আপনার শরীরে বাসা বাঁধার সম্ভাবনা একলাফে বাড়তে পারে কয়েক গুণ। তাই সেই আশঙ্কাকে দূরে সরিয়ে রাখতে থাকুন ঘরবন্দি। নিজেদের চেনা পরিচিতদেরও ঘর থেকে বেরতে বারণ করুন। বারবার রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে এমনই সতর্কবাণী প্রচার করছেন পুলিশকর্মীরা। আমরা যখন ঘরে থেকেও রোগ সংক্রমণের আশঙ্কায় প্রহর গুনছি, তখন বাইরে বেরিয়ে সকলের ভালর জন্য নিরন্তর কাজ করে চলেছেন তাঁরা। এই বিপদের দিনগুলিতে কীভাবে কাটছে তাঁদের? সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবিই শেয়ার করেছেন অরুণাচল প্রদেশের শীর্ষ পুলিশ আধিকারিক মধুর ভার্মা।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় মধুর ভার্মার শেয়ার করা ছবিতে দেখা যায়, রাস্তার উপর শুয়ে রয়েছেন দু’জন পুলিশকর্মী। মাথার কাছে রাখা লাঠি, হেলমেট-সহ নানা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। তিনি ছবিটির ক্যাপশনে লেখেন, “একটি আরামদায়ক বিছানা এবং আট ঘণ্টার ঘুম বিলাসিতা নয়? যদি আপনি পুলিশ হন, হ্যাঁ তবে এটা বিলাসিতা।”

[আরও পড়ুন: ‘অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে অপচয় রোধ করুন’, সশস্ত্র বাহিনীদের আবেদন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর]

সম্প্রতি তাঁর শেয়ার করা ছবি মন কাড়ে নেটিজেনদের। হু হু করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে ছবিটি। বাড়তে থাকে লাইক, কমেন্টের সংখ্যা। এর আগে গত মার্চে বারান্দায় দাঁড়িয়ে হাততালি দিয়ে, ঘণ্টা বাজিয়ে করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানিয়েছে গোটা ভারত। ভাইরাল এই ছবি দেখে পুলিশকর্মীদের ধন্যবাদ না জানিয়ে পারছেন না নেটিজেনরা। সকলেই এক বাক্যে স্বীকার করেছেন পুলিশকর্তার লেখা ক্যাপশন সত্যিই সঠিক। করোনা সংক্রমণ রুখতে সকলেই যখন দরজা বন্ধ করে পরিজনদের সঙ্গে ঘরে লকডাউনের আস্তানা তৈরি করেছেন, তখন পরিজনদের কথা ভুলে স্রেফ পেশার স্বার্থে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন পুলিশকর্মীরা। সকলেই তাই আরও একবার কুর্নিশ জানিয়েছেন উর্দিধারীদের।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে