Advertisement
Advertisement
সেপ্টেম্বরে শীর্ষে করোনা গ্রাফ

মধ্য সেপ্টেম্বরে শীর্ষ উঠবে দেশের করোনা গ্রাফ, নয়া আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের

আমজনতার সচেতনতাই সংক্রমণ রোখার পথ, বলছেন দেশের এক জনস্বাস্থ্য অধিকর্তা।

Corona infection will touch peak at Mid-September, allert from Public Health directors
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:July 19, 2020 9:52 am
  • Updated:July 19, 2020 10:01 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে করোনা মোকাবিলায় সরকার সঠিক পদক্ষেপ করলে এবং সাধারণ মানুষ দায়িত্ব নিয়ে সমস্ত বিধি মেনে চললেও সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময় দেশে করোনা (Coronavirus) গ্রাফ ছুঁয়ে ফেলবে শীর্ষবিন্দু। এক এক জায়গায় এক এক সময় তা শীর্ষে উঠবে। শনিবার এমনই দাবি করলেন পাবলিক হেলথ ফাউন্ডেশন অফ ইন্ডিয়ার প্রেসিডেন্ট অধ‌্যাপক কে শ্রীনাথ রেড্ডি।

অধ্যাপক রেড্ডির কথায়, “এই ব্যাপক হারে করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর আগে আটকাতে পারতাম আমরা, তা আটকানো উচিত ছিল। দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এখন আমাদের উচিত সবচেয়ে ভাল করে চেষ্টা করা।” দেশে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্ত ১০ লক্ষ ৭৭ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃতের সংখ্যা পেরিয়েছে ২৬ হাজার। এই পরিসংখ্যান হাতে পেয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শ্রীনাথ।

Advertisement

[আরও পড়ুন: লাগামহীন করোনা, দেশে একদিনেই নতুন করে আক্রান্ত প্রায় ৩৯ হাজার]

সারা দেশেই আক্রান্তের সংখ‌্যা যেমন হু হু করে বাড়ছে, তেমনই করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ‌্যাও বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। তবে রবিবার কেরলের মুখ‌্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন সেখানে গোষ্ঠী সংক্রমণের কথা জানানোর পর উদ্বেগ বেড়েছে। বিজয়ন জানিয়েছেন, তিরুঅনন্তপুরমের কাছে কয়েকটি গ্রামে ৮৪ টি গোষ্ঠীতে সংক্রমণ ছড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। ওই সব গোষ্ঠীতে প্রায় ৫০ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত। সেই কারণে সংক্রমণ ছড়ানো আটকাতে ফের এলাকাভিত্তিক লকডাউনের ঘোষণা করেছেন বিজয়ন। মহারাষ্ট্রে শনিবার নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৮,৩৪৮ জন। এর ফলে সে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ‌্যা তিন লক্ষ ছাড়িয়ে গেল।

Advertisement

[আরও পড়ুন: এবার আসরে অমিত শাহ! রাজস্থান কাণ্ডে রাজ্যের কাছে রিপোর্ট চাইল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক]

এছাড়াও কেন্দ্র বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, অসম, ওড়িশা সরকারকে ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে আরও কড়া ব‌্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এদিন ভোপালের সিআইডির ডিএসপি করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। বিহারের বিরোধী দলনেতা আরজেডির তেজস্বী যাদব অভিযোগ করেন, দেশের মধ্যে সবচেয়ে কম করোনা টেস্ট হচ্ছে বিহারে। অথচ রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি যথেষ্ট সংকটজনক। এদিন বিহারে ৭৩৯ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে।

অন‌্যদিকে শনিবার দিল্লিতে আপ নেত্রী অতীশী করোনামুক্ত হয়ে নিজের প্লাজমা দান করলেন আক্রান্ত রোগীদের জন‌্য। সংক্রমণ রুখতে এই সপ্তাহান্তে পুরোপুরি লকডাউন ছিল নৈনিতাল, উধম সিং নগর, হরিদ্বার। দক্ষিণের রাজ্যগুলির করোনা পরিস্থিতি বিশেষ ভাল নয়। অন্ধ্রপ্রদেশে COVID পজিটিভের সংখ্যা ৪০,০০০ পেরিয়েছে। দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তাঁর কথায়, সংক্রমণ যদি এই হারে বাড়তে থাকে তবে আগামী ১০ অগস্টের মধ্যে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০ লক্ষ পেরিয়ে যাবে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ