BREAKING NEWS

১৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বুধবার ২৭ মে ২০২০ 

Advertisement

‘পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য অনেক কিছুই করা যেত’, আক্ষেপ নীতি আয়োগের প্রধানের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 23, 2020 11:45 am|    Updated: May 23, 2020 11:45 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংবেদনশীলতা এবং পরিকল্পনার অভাব। কেন্দ্র এবং রাজ্য দুই স্তরেই। পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার জন্য ঘুরিয়ে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলিকেই দায়ী করলেন নীতি আয়োগের (NITI Aayog) সিইও অমিতাভ কান্ত (Amitabh Kant)। বর্তমান পরিস্থিতির জন্য রাজ্য সরকারগুলির উপর বেশিরভাগ দায় চাপালেও কেন্দ্রকে ক্লিনচিট দিলেন না সরকারের পরামর্শদাতা কমিটির (নীতি আয়োগ) প্রধান।

migrant-lies-on-ffriends-lap-new

অমিতাভ কান্তের মতে, আমাদের পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যার কথা আরও সংবেদনশীলতার সঙ্গে ভাবা উচিৎ ছিল এবং আরও ভাল পরিকল্পনা করা উচিৎ ছিল। তাঁর বক্তব্য, ভিন রাজ্যে কাজে যাওয়া শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আর একটু বেশি যত্ন নেওয়া উচিত ছিল। যদিও অমিতাভ কান্ত বলছেন, শ্রমিকদের আসল সমস্যা রাজ্যগুলিতেই। ‘সমস্যা হল, আমরা নতুন নতুন আইন তৈরি করে অসংগঠিত ক্ষেত্রে অনেক বেশি কাজের সুযোগ তৈরি করে ফেলছি। ফলে এদের সম্পর্কে উপযুক্ত তথ্য নেই’, একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলছেন নীতি আয়োগের সিইও। তাঁর কথায়,”রাজ্য সরকারগুলিকে ভাবতে হবে ঠিক কী কারণে এই শ্রমিকরা নিজেদের রাজ্য ছেড়ে অন্য রাজ্যে কাজ করতে যান? নিজেদের রাজ্যে কাজের সমস্যা না থাকলে কখনওই কেউ বাইরে কাজ করতে যাবেন না। আসলে ভারতের মতো বড় দেশে কেন্দ্র সরকারের ভূমিকা খুবই সীমিত। সুতরাং প্রথমে রাজ্যগুলিকে ঠিক করতে হবে শ্রমিকরা যাতে রাজ্যে থাকেন। আর এখন যেহেতু শ্রমিকরা ভিনরাজ্যে চলে গিয়েছে, তখন আমাদের ওঁদের বাড়ি ফেরানোর জন্য আরও ভাল পরিকল্পনা করা উচিৎ ছিল।”

[আরও পড়ুন: প্রথম দু’দফার লকডাউন প্রাণ বাঁচিয়েছে ৭৮ হাজার মানুষের! দাবি নীতি আয়োগের]

উল্লেখ্য, দেশে লকডাউন জারি হওয়ার পর থেকেই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে পরিযায়ী শ্রমিকদের জীবন। কাজ হারিয়ে, বাসস্থান হারিয়ে অসহায়ের মতো পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছেন হাজার হাজার মানুষ। জুটছে যা খাবার, পানীয় জলের মতো জীবনধারণের ন্যূনতম উপকরণও। অথচ, এখনও কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি এদের নিয়ে শুধু চিঠি আদানপ্রদান করে চলেছে। দায়িত্ব নিতে কেউ রাজি নয়। এই সমস্যা নিয়েই নীতি আয়োগের সিইও বললেন, চাইলে আরও একটু গুরুত্ব দিয়ে শ্রমিকদের বিষয় চিন্তা ভাবনা করে আরও ভাল পরিকল্পনা করা যেত।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement