BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বেসরকারি কেন্দ্র থেকে যাঁরা করোনার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, তাঁদেরও দ্বিতীয় ডোজ বিনামূল্যে

Published by: Biswadip Dey |    Posted: May 2, 2021 8:47 pm|    Updated: May 2, 2021 9:18 pm

COVID-19 Second vaccine dose free for those who got first before April 30 । Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার (Coronavirus) দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় বেসামাল দেশ। এই পরিস্থিতিতে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলের টিকাকরণের (COVID vaccine) প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়ে দিল, স্বা‌স্থ্যকর্মী, করোনার ফ্রন্টলাইন কর্মী ও ৪৫ বছর বয়সের ঊর্ধ্বে যাঁরা কোনও বেসরকারি টিকাদান কেন্দ্র থেকে টিকা নিয়েছেন, তাঁরা চাইলে দ্বিতীয় ডোজটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পেতে পারেন সরকারি কেন্দ্র থেকে। তবে এই সুযোগ কেবল ৩০ এপ্রিলের মধ্যে যাঁরা টিকা নিয়েছেন তাঁদের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক এমনটাই জানিয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব মনোহর আগনানির লেখা এক চিঠিতে পরিষ্কার জানানো হয়েছে, বেসরকারি টিকাকরণ কেন্দ্র থেকে যে স্বা‌স্থ্যকর্মী, করোনার ফ্রন্টলাইন কর্মী ও ৪৫ বছর বা তাঁর বেশি বয়সিরা টিকা নিয়েছেন তাঁরা চাইলে সরকারি কেন্দ্র থেকে দ্বিতীয় ডোজটি বিনামূল্যে গ্রহণ করতে পারেন। তবে যদি তাঁরা চান তাহলে, বেসরকারি কেন্দ্র থেকেও টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে পারেন। সেক্ষেত্রে অবশ্য আর বিনা খরচে টিকা নিতে পারবেন তাঁরা। তখন ওই বেসরকারি কেন্দ্রের ধার্য করা মূল্যই দিতে হবে।

[আরও পড়ুন: ‘দিদি-দলীয় কর্মীদের শক্তির কাছে মুখ পুড়ল মোদি-শাহদের’, টুইটে খোঁচা ডেরেকের]

এদিকে দৈনিক করোনা সংক্রমণের সংখ্যা রবিবার সামান্য কমলেও পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এদিকে টানা দ্বিতীয় বার মৃতের সংখ্যা পেরিয়ে গিয়েছে সাড়ে তিন হাজারের গণ্ডিও। বিশেষজ্ঞরা বারবার জোর দিয়ে জানিয়েছেন, টিকাকরণের হার বাড়তে শুরু করলেই করোনা যুদ্ধে ভাল জায়গায় পৌঁছবে ভারত। এই মুহূর্তে কোভিড বিধি মেনে চলার পাশাপাশি টিকাকরণের হার বাড়ানোর বিষয়েও জোর দিয়েছেন তাঁরা।

এখনও পর্যন্ত ১৫ কোটি ৬৮ লক্ষের বেশি দেশবাসীকে টিকা দেওয়া হয়েছে। সংখ্যাটা বেশি হলেও দেশের মোট জনসংখ্যার নিরিখে সামান্যই। এই পরিস্থিতিতে টিকাকরণের গতি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। যদিও বহু রাজ্যই জানিয়েছে তাদের কাছে টিকার পর্যাপ্ত ডোজ নেই।

এদিকে রবিবারই দেশের বিরোধী নেতৃত্ব প্রধানমন্ত্রীকে একটি যৌথ বিবৃতিতে আরজি জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে সচেষ্ট হতে। পাশাপাশি বিনামূল্যে গণটিকাকরণের দাবিও তোলেন তাঁরা। ওই বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সোনিয়া গান্ধী, উদ্ধব ঠাকরে, শরদ পাওয়ার, অখিলেশ যাদবের মতো নেতানেত্রীরা।

[আরও পড়ুন: মাদ্রাজ হাই কোর্টের ‘খুনের মামলা’ মন্তব্যের বিরুদ্ধে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ নির্বাচন কমিশন]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে