BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

COVID-19 Update: বর্ষশেষে ওমিক্রনের থাবা আরও চওড়া দেশে, করোনার নয়া স্ট্রেনে আক্রান্ত প্রায় ১৩০০

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: December 31, 2021 9:49 am|    Updated: December 31, 2021 10:27 am

COVID-19 Update: 16,764 new cases in last 24 hours, 220 death, Omicron toll rises to 1270 | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০২১ বিদায় নিচ্ছে অস্বস্তি বাড়িয়ে। নতুন বছরের জন্য সতর্কতার বার্তা রেখে। মহামারী করোনা ভাইরাসের নয়া স্ট্রেন ওমিক্রনের (Omicron) থাবা আরও চওড়া হল দেশে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সাম্প্রতিকতম রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড পজিটিভ (COVID-19) হয়েছে ১৬ হাজার ৭৬৪ জন। বৃহস্পতিবারও যা ছিল ১৩ হাজারের বেশি। একদিনে করোনার বলি দেশের ২২০ জন। তবে সবচেয়ে উদ্বেগজনক তথ্য – দেশে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১২৭০। তবে এর বিরুদ্ধে লড়াইয়েও খুব পিছিয়ে নেই ভারত (India)। করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) কবল থেকে সুস্থতার হার ৯৮.৩৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৫৮৫ জন।

 

COVID19 | India reports 16,764 new cases, 7,585 recoveries and 220 deaths in the last 24 hours.

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান ভালভাবে খেয়াল করলে বোঝা যায়, দেশে অ্যাকটিভ কেসও (Active Cases) ঊর্ধ্বমুখী। এই মুহূর্তে তা ৯১,৩৬১। আক্রান্তদের অনেকের শরীরেই ওমিক্রন বাসা বাঁধছে। এক্ষেত্রে সকলেই যে বিদেশফেরত, এমন নয়। যাঁদের সাম্প্রতিককালে বিদেশ যাওয়ার রেকর্ড নেই, তাঁদেরও অনেকে ওমিক্রন আক্রান্ত।

[আরও পড়়ুন: Omicron: দেশে ওমিক্রনের প্রথম বলি মহারাষ্ট্রের প্রৌঢ়]

কেন্দ্রের বুলেটিন অনুযায়ী, বেশিরভাগে ওমিক্রন পজিটিভ কেস মহারাষ্ট্রের। সেখানে এই মুহূর্তে ওমিক্রন রোগীর সংখ্যা ৪৫০। একজনের মৃত্যুও হয়েছে, যিনি দেশের মধ্যে প্রথম ওমিক্রনের বলি। এরপরই রয়েছে দিল্লি – ৩২০ জনের শরীরে ধরা পড়েছে করোনার নতুন স্ট্রেনটি। সতর্কতা অবলম্বনের জন্য ব্রিটেন-সহ বেশ কয়েকটি দেশ থেকে উড়ান চলাচলে কড়া বিধিনিষেধ জারি করার পথে হাঁটছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যে সংক্রমণ প্রবণ রাজ্যগুলি বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে লাগাম টেনেছে। 

[আরও পড়়ুন: বর্ষবরণের আগে ফের উত্তপ্ত কাশ্মীর, যৌথবাহিনীর গুলিতে নিকেশ ৩ জঙ্গি]

এদিকে, নতুন বছরের শুরু থেকে ১৫-১৮ বছর বয়সিদের টিকাকরণের কাজ শুরু হবে। তার জন্য ১ জানুয়ারি থেকেই কো-উইন  অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করা হবে। পাশাপাশি ষাটোর্ধ্ব কোমর্বিড রোগাীদেরও দেওয়া হবে ভ্যাকসিনের বুস্টার বা প্রিকশন ডোজ। টিকাকরণে জোর দিয়েই মহামারীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হওয়ার লক্ষ্যে এগোচ্ছে দেশ। ইতিমধ্য়ে ১৪৪.৫৪ কোটি দেশবাসীর ভ্য়াকসিন গ্রহণ সম্পূর্ণ। শুধুমাত্র গত ২৪ ঘণ্টাতেই ৬৬,৬৫,২৯০ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। তবে নতুন বছরে আশঙ্কা থাকছেই। আচমকা বাংলায় সংক্রমণের হার বেড়েছে। ওমিক্রন চোখ রাঙাচ্ছে অন্যান্য রাজ্যগুলিতেও। ফলে নতুন বছরে করোনা কাঁটা কাটবে কি না, তা নিয়ে ঘোর সংশয় থেকেই যাচ্ছে। 

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে