BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘অপরাধের রাজনীতির নতুন নজির গড়েছে তৃণমূল’, শ্যামাপ্রসাদের জন্মদিনে সরকার বদলের ডাক নাড্ডার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 6, 2020 2:01 pm|    Updated: July 6, 2020 3:28 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের ১১৯ তম জন্মদিনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কংগ্রেসকে তীব্র আক্রমণ করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা (JP Nadda)। পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে এনডিএ  (NDA) সরকার শ্যামাপ্রসাদের স্বপ্নপূরণ করেছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বক্তব্যের শুরুতে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের শিক্ষা ও কর্মজীবনের কথা উল্লেখ করে তাঁর ভূয়সী প্রংশসা করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। কীভাবে দেশের অখণ্ডতা রক্ষার জন্য লড়াই করার সঙ্গে সঙ্গে বাংলার বাঘ আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের সুযোগ্য পুত্র শ্যামাপ্রসাদ পশ্চিমবঙ্গের জন্ম দিয়েছেন সেবিষয়েও আলোকপাত করেন। জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য শ্যামাপ্রসাদের আত্মবলিদানের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে সেসময় জওহরলাল নেহেরু ধর্মীয় বিভাজন করতে চেয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেন। উদাহরণ হিসেবে নেহেরু-লিয়াকত চুক্তি র কথাও মনে করিয়ে দেন।

[আরও পড়ুন: ঊর্ধ্বমুখী সেনসেক্স-নিফটি, করোনার টিকা আবিষ্কারের সম্ভাবনায় চাঙ্গা বাজার]

প্রচণ্ড মেধাবী ও দূরদর্শিতা সম্পন্ন শ্যামাপ্রসাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে জেপি নাড্ডা বলেন, ‘ভারতরত্ন ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় যে জনসংঘের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সেই দল আজ দেশ তথা বিশ্বে সবার সমীহ পাচ্ছে। এর থেকে বোঝা যায়, একটি মানুষের চিন্তাধারা কতটা শক্তিশালী হলে এত বড় দল তৈরি হতে পারে। ১৯৫১ সালে অসংখ্য প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে প্রথম সাংসদ হয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে আরও দুজন সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু, উনি এতটাই শক্তিশালী মানুষ যে বিরোধীদের পাশাপাশি কংগ্রেস সাংসদরা তাঁর কথা মানত। উনি যে স্বপ্নের শুরু করেছিলেন আজ তা বাস্তবরূপ পেয়েছে। তিনি একসময়ে কাশ্মীরকে দেশের অংশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য লড়াই শুরু করেছিলেন। আজ মোদিজি ও অমিত শাহজির নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকার তা সফল করেছে। শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এমন মানুষ ছিলেন যিনি বাংলাকে পাকিস্তানে যাওয়া থেকে আটকানোর পাশাপাশি পাঞ্জাবকেও বাঁচিয়ে ছিলেন।’

যে বাংলায় বিবেকানন্দ, রবীন্দ্রনাথ ও শ্যামাপ্রসাদের মতো মানুষরা ছিলেন, সেখানে তৃণমূল নোংরা রাজনীতি করেছে বলেও অভিযোগ করেন বিজেপি সভাপতি। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অপরাধের রাজনীতির নতুন এক নজির গড়েছে তৃণমূল। এখন আবার আমরা সবাই বাংলার কাটমানির কথা শুনছি। যে নেতারা কাটমানি দাবি করে আমাদের তাদের সরিয়ে দেওয়া উচিত। আমাদের বাংলার পুরনো গৌরব ফিরিয়ে আনার জন্য এই সরকারকে সরিয়ে দেওয়া উচিত।’ 

[আরও পড়ুন: মনের জোরেই করোনা যুদ্ধে জয়, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন মহারাষ্ট্রের ১০৪ বছরে বৃদ্ধ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement