BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ক্ষমতা বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ফণী, জারি কড়া সতর্কতা

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 29, 2019 3:36 pm|    Updated: April 29, 2019 3:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সময় যত এগোচ্ছে, ততই শক্তি বাড়াচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ফণী৷ আবহবিদদের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আপাতত দক্ষিণ পূর্ব বঙ্গোপসাগরেই অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড়৷ আগামী ১২ থেকে ২৪ ঘণ্টায় শক্তি বাড়িয়ে প্রবল আকার ধারণ করতে পারে ওই ঘূর্ণিঝড়৷ মঙ্গলবার দক্ষিণের উপকূলে ফণী আছড়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন আবহবিদরা৷

[ আরও পড়ুন: শয়ে শয়ে কাঁকড়া বিছে ঘোরাফেরা করলেও কামড়ায় না, আমরোহার দরগায় ম্যাজিক]

মৌসম ভবনের পূর্বাভাস, ৩০ এপ্রিল থেকে ১ মে-র সন্ধের মধ্যেই উত্তর-পশ্চিম এবং দক্ষিণ-পূর্বে আছড়ে পড়বে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়৷ প্রবল বৃষ্টির পাশাপাশি বইতে পারে ঝোড়ো হাওয়াও৷ ফণীর প্রভাবে কেরল, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশের একাধিক জায়গা বিপর্যস্ত হওয়ার আশঙ্কাও তৈরি হয়েছে৷ ৩০ এপ্রিল দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে প্রবল ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা৷ ফণীর প্রভাবে আগামী ২ মে ওড়িশায় হতে পারে বৃষ্টি৷ প্রায় ১২০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ও বইতে পারে ওই রাজ্যগুলিতে৷ ইতিমধ্যেই অন্ধ্রের ন’টি জেলায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷  এর্নাকুলাম, ইদুক্কি, ত্রিশুর, মালাপ্পুরম, পাঠানমত্থিতা, কোট্টায়াম, ওয়ানড়, কোঝিকোড়ে, পালাক্কার-সহ বেশ কয়েকটি ধসপ্রবণ জেলায় জারি করা হয়েছে হলুদ সতর্কতা৷ সতর্কতার পরই রাজ্য প্রশাসনের তরফে পরিস্থিতি মোকাবিলায় জরুরি বৈঠক শুরু হয়েছে৷ আগামী কয়েকদিন সমুদ্র উত্তাল হওয়ারও সম্ভাবনা৷ তাই এই পরিস্থিতিতে তামিলনাড়ু, পুদুচেরি, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশায় মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে নামার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে৷ যাঁরা সমুদ্রে রয়েছেন, তাঁদের ফিরে আসার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ সমুদ্রের কাছাকাছি এলাকার বাসিন্দাদেরও সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ যে কোনও মুহূর্তে তাঁদের অন্যত্র স্থানান্তরিত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে উপকূল বাহিনী৷

[আরও পড়ুন: চতুর্থ দফায় ৭২ আসনে ভোটগ্রহণ, বিজেপির ঘাঁটিতে থাবা বসাতে মরিয়া বিরোধীরা]

তবে বাংলায় ফণীর জেরে বাংলায় আপাতত কোনও প্রভাব পড়বে না বলেই জানিয়েছেন আবহবিদরা৷ চড়চড়িয়ে বাড়ছে বাংলার তাপমাত্রা৷ এপ্রিলের শেষেই পশ্চিমের জেলাগুলির তাপমাত্রা প্রায় ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে৷ বইছে লু৷ বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকায় বজায় থাকবে ভ্যাপসা গরম। আপাতত দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছে হাওয়া অফিস৷ ভুটান পাহাড়ে বৃষ্টির জেরে উত্তরের বেশ কয়েকটি জায়গা জলমগ্ন হয়ে গিয়েছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement