৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গাড়িতে কন্ডোম না থাকলে অনেক টাকা জরিমানা করছে পুলিশ। এই গুজবকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে দিল্লির ক্যাব চালকদের মধ্যে। কোনও কোনও চালক আবার এই গুজবকে সত্যি বলেই দাবি করছেন। যদিও এই দাবি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবি করা হয়েছে দিল্লি ট্রাফিক পুলিশের তরফে। এই ধরনের কোনও জরিমানার কথা মোটর ভেহিকেলস আইনে নেই বলেই জানিয়েছে তারা।

[আরও পড়ুন: প্রবল বৃষ্টি ও বন্যার জেরে বিপর্যস্ত মধ্যপ্রদেশ, মৃত ২২৫]

বিষয়টির সূত্রপাত হয় দিন কয়েক আগে। দিল্লির এক ক্যাব চালক ধর্মেন্দ্র অভিযোগ করেন, গাড়ির ফার্স্ট এড বক্সে কন্ডোম না থাকায় তাঁকে জরিমানা করেছে ট্রাফিক পুলিশ। তাঁর দাবি, কন্ডোম না থাকার জন্য যে জরিমানা করা হচ্ছে একথা স্পষ্টভাবে চালানে লিখে দেওয়া হয়েছে। এরপরই এই খবর ছড়িয়ে পড়ে বাকি চালকদের মধ্যে। তাঁদের মনে এই ধারণা হয় যে জরিমানা এড়ানোর জন্য ফার্স্ট এড বক্সে কন্ডোম রাখতেই হবে। বিষয়টি নিয়ে শোরগোল শুরু হতেই দিল্লির চালকদের একটি সংগঠন সর্বোদয়ের সভাপতি কমলজিৎ গিল জানান, জনসাধারণের পরিবহণের জন্য নির্দিষ্ট সমস্ত গাড়ির চালককে কন্ডোম রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এক্ষেত্রে কন্ডোমের ব্যবহার করা হচ্ছে অন্য কারণে। যদি গাড়ি দুর্ঘটনা হলে কোনও যাত্রী জখম হন। তার শরীর থেকে রক্ত বেরোয়। তাহলে সেখানে কন্ডোম বেঁধে দিলে রক্তপাত বন্ধ হয়। কারও হাত বা পা ভেঙে গেলেও ওই জায়গা কন্ডোম বাঁধতে হয়। তাহলে ওই জায়গাটা টাইট করে কন্ডোম দিয়ে বেঁধে দিতে হয়। পরে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করাতে হয়। প্রাথমিকভাবে কন্ডোম দিয়ে পরিস্থিতি সামলানো হয়।’

[আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশ থেকে দিল্লি পর্যন্ত মিছিলের জের, আখ চাষিদের ৫টি দাবি মানল কেন্দ্র]

যদিও কন্ডোম না থাকলে জরিমানা করার বিষয়টি অস্বীকার করেছে দিল্লি ট্রাফিক পুলিশ। উলটে তাদের দাবি, এই ধরনের কোনও ঘটনাই ঘটেনি। এই ধরনের ঘটনা ঘটলে লিখিতভাবে অভিযোগ জানান চালকরা। তাহলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আসলে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলি চালকদের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেন। হয়ত তাদের কথা শুনেই গাড়িতে কন্ডোম রাখছেন ক্যাব চালকরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং