BREAKING NEWS

২৬ বৈশাখ  ১৪২৯  সোমবার ১৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কাটল আইনি জটিলতা, দিল্লির আদালতে খারিজ নির্ভয়ার দোষী বিনয়ের আরজি

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 22, 2020 3:59 pm|    Updated: February 22, 2020 6:26 pm

Delhi Patiwala House court dismissed NIrbhaya's convict Binay's plea

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উন্নত চিকিৎসার দাবিতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন নির্ভয়ার ধর্ষক-খুনি বিনয় শর্মার আইনজীবী। সেই আরজি খারিজ করল দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। আদালতের সাফ কথা, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামীর ক্ষেত্রে দুশ্চিন্তা, হতাশা স্বাভাবিক। বিনয়তে যথাযথ চিকিৎসার সুবিধা দেওয়া হচ্ছে বলেও জানিয়ে দেয় আদালত। ফলে নির্ভয়ার চার দোষীর কোনও মামলা আর আদালতে ঝুলে রইল না। আইনজ্ঞদের কথায়, ৩ মার্চ নির্ভয়ার চার দোষীর ফাঁসির পথে আর কোনও বাধা রইল না। এদিন পাতিয়ালা হাউস কোর্টের রায়দানের পর নির্ভয়ার মা আশাদেবী জানান, “দোষীরা ক্রমাগত আদালতকে ভুল পথে পরিচালনা করছে। আমি মনে করি ৩ তারিখই ওই চারজনের ফাঁসি হবে।”

 

শনিবার সেই আবেদনের শুনানি ছিল। এদিন দু’পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনার পরও রায় দেননি বিচারক। বিনয়ের আইনজীবীর দাবি ছিল, তার মক্কেলের মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে। স্ক্রিৎজোফেনিয়ায় ভুগছে সে। তাই তার উন্নতমানের চিকিৎসা প্রয়োজন। যদিও তা মানতে নারাজ তিহার জেল কর্তৃপক্ষ।

[আরও পড়ুন : ইউহানে আটক ভারতীয়দের উদ্ধারে বাধা দিচ্ছে চিন, বিস্ফোরক অভিযোগ নয়াদিল্লির]

এর আগেও বিনয়ের মানসিক স্বাস্থ্যের দোহাই দিয়ে ফাঁসি থেকে রেহাই দেওয়ার দাবি জানিয়েছিলেন আইনজীবী এ পি সিং। এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে তিহার জেলের দেওয়ালে মাথা ঠুকতে থাকে বিনয়। সঙ্গে সঙ্গে জেল কর্তৃপক্ষ তাকে সরিয়ে নিয়ে যায়। চোটও তেমন গুরুতর নয় বলেই জানানো হয়েছে। কিন্তু সে কথা মানতে নারাজ বিনয়ের আইনজীবী। চোট গুরুতর বলে দাবি করে এ পি সিং আদালতের দ্বারস্থ হন।

[আরও পড়ুন : রাজনৈতিক প্রতিহিংসা! দিল্লির স্কুল পরিদর্শনে মেলানিয়া ট্রাম্প, অথচ আমন্ত্রিত নন মুখ্যমন্ত্রী]

আইনজীবী জানান, বিনয়ের ডান হাত ভেঙে গিয়েছে। মানসিক ভারসাম্য নষ্ট হয়েছে। তার মাকেও চিনতে পারছে না। এমনকী বিনয়কে স্ক্রিৎজোফেনিয়ার রোগী বলেও দাবি করেন তিনি। এরপরই তাকে Institute of Human Behaviour & Allied Sciences (IHBAS) হাসপাতালে রেফার করার দাবি জানান। এদিন আদালতেও একই কথা জানান বিনয়ের আইনজীবী। তবে জেল কর্তৃপক্ষের পালটা যুক্তি ছিল, বিনয় এই কয়েকদিনে বাড়িতে মায়ের কাছে ও আইনজীবীকে ফোন করেছে। তাহলে তাঁর আইনজীবী কীভাবে দাবি করছেন, বিনয় কাউকে চিনতে পারছে না?

 

এদিকে ৩ মার্চ চার সাজাপ্রাপ্তের ফাঁসি হওয়ার কথা। তিনজনের সমস্ত আইনি সহায়তা পাওয়ার পথ বন্ধ। কিন্তু বিনয়ের রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আরজি এখনও বাকি রয়েছে। এমন পরিস্থিতি ৩ মার্চ আদৌ কি নির্ভয়ার চার দোষীর ফাঁসি হবে, তার দিকে তাকিয়ে গোটা দেশ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে