BREAKING NEWS

১৫  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ পড়ুয়াকে সমন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকল দিল্লি পুলিশ

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 20, 2020 3:42 pm|    Updated: February 20, 2020 3:45 pm

Delhi Police summons 10 students in connection with Jamia violence

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ পড়ুয়াকে সমন পাঠাল দিল্লি পুলিশের অপরাধ দমন শাখা। ১৫ ডিসেম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়ে অশান্তি নিয়ে জেরা করতে তাঁদের ডেকে পাঠানো হয়েছে বলে খবর। সূত্রের খবর, অশান্তির দিন জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরের সিসিটিভি ফুটেজে দেখে তাঁদের চিহ্নিত করেছে পুলিশ। প্রসঙ্গত, এই মামলায় প্রথমবার পড়ুয়াদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে ডেকে পাঠানো হল। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জামিয়ায় পুলিশি তাণ্ডবের ভিডিও ফুটেজ ফাঁস করেছিল বলে অভিযোগ। সেই ঘটনায় কর্তৃপক্ষের জবাব চেয়ে পাঠিয়েছে পুলিশ।

দিন কয়েক আগেই জামিয়া কাণ্ডে চার্জশিট পেশ করে দিল্লি পুলিশ। চার্জশিটে ১৮ জনের বিরুদ্ধে দাঙ্গা, সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর এবং সরকারি কর্মচারীদের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে জামিয়ার কোনও পডুয়ার নাম নেই। উলটে নাম রয়েছে JNU-এর প্রাক্তন পড়ুয়া শারজিল ইমামের। তাঁর বিরুদ্ধে ওই দিনের অশান্তিতে ইন্ধন জোগানোর অভিযোগ রয়েছে। সেই গোটা ঘটনায় মূল অভিযুক্ত।

[আরও পড়ুন : গান্ধীদের সরানোর ডাক! কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বে বদল চেয়ে সরব দুই শীর্ষ নেতা]

প্রসঙ্গত, ১৫ ডিসেম্বর জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও নিউ ফ্রেন্ডস কলোনিতে অশান্তি ছড়ায়। সেই ঘটনায় ১৩ ফেব্রুয়ারি দিল্লির শকেত আদালতে একটি চার্জশিট জমা করা হয়েছিল বলে সূত্রের খবর। অশান্তির জেরে ৯৭ জন জখম হয়েছিলেন। এরমধ্যে ৪৭ জন পুলিশ কর্মী। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১৭জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁদের মধ্যে ৯জন NFC ও বাকি ৮জন জামিয়ার পড়ুয়া ছিলেন।

[আরও পড়ুন : রাজস্থানে চুরির অভিযোগে বেধড়ক মার ২ দলিত যুবককে, যৌনাঙ্গে ঢালা হল পেট্রল]

সূত্রের খবর, দিল্লি পুলিশ চার্জশিটে সিসিটিভি ফুটেজ, কল রেকর্ডস এবং শতাধিক প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ানও রেখেছে। পুলিশে তদন্ত আরও তথ্য উঠে এসেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বুলেট উদ্ধার হয়। পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছে, উদ্ধার হওয়া বুলেটটি ৩.২ এমএম পিস্তলের। অশান্তিতে জড়িত বাকিদের ছবিও পুলিশ প্রকাশ করবে বলে জানিয়েছে। এমনকী এই অশান্তির পিছনে PFI-এর হাত রয়েছে বলে মনে করছে দিল্লি পুলিশ। আর তাই সে বিষয় তদন্ত চলছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে