৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ট্রেনে হাওড়া থেকে দিল্লি পৌঁছতে এবার লাগবে আরও কম সময়। এরজন্য হাওড়া থেকে দিল্লি পর্যন্ত তৈরি হবে নতুন লাইন। এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত হলে সফরের সময় কমবে আরও প্রায় ৬ ঘণ্টা। ফলে ১৮ ঘণ্টার বদলে হাওড়া থেকে দিল্লি যেতে রাজধানী এক্সপ্রেসের সময় লাগবে মাত্র ১২ ঘণ্টা। শুক্রবার টুইট করে এই কথা জানান রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে ফের গুলি পাকিস্তানের, শহিদ জওয়ান]

জানা গিয়েছে, হাওড়া থেকে দিল্লি পর্যন্ত ১৫২৫ কিলোমিটার রাস্তায় এই নতুন লাইন পাতা হবে। এর ফলে প্রতি ঘণ্টায় ট্রেন দৌড়তে পারবে ১৬০ কিলোমিটার। আর মাত্র ১২ ঘণ্টায় বাংলা, ঝাড়খণ্ড, বিহার ও উত্তরপ্রদেশ হয়ে ট্রেনটি ঢুকবে রাজধানী দিল্লিতে।

বর্তমানে রাজধানী কিংবা দুরন্ত, এই রুটের সবথেকে দ্রুতগামী দুটি ট্রেনের হাওড়া থেকে দিল্লি যেতে সময় লাগে ১৮ থেকে ২০ ঘণ্টা। তাই রেলমন্ত্রীর এই ঘোষণার খুশির আমেজ ছড়িয়েছে কলকাতা থেকে দিল্লিগামী যাত্রীদের মধ্যে। এর ফলে মাত্র একরাতের মধ্যেই রাজধানীতে পৌঁছে যেতে পারবেন তাঁরা। রেলের নতুন এই প্রকল্পের ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন ইকোনমিক অ্যাফেয়ার্স সংক্রান্ত ক্যাবিনেট কমিটি।

[আরও পড়ুন: ধর্ষণকাণ্ডে বহিষ্কৃত সন্ন্যাসিনী, ভ্যাটিকানের কাছে বিচারের আরজি প্রতিবাদীর]

গত ১২ আগস্ট ১৮০ কিলোমিটার গতিবেগ সম্পন্ন ইঞ্জিন তৈরির কথা ঘোষণা করেন রেলমন্ত্রী। এর ফলে রাজধানীর মতো ট্রেনগুলির গতি আরও বাড়বে বলে জানা গিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কস রেলের কারখানাতে তৈরি করা হয়েছে ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার গতিসম্পন্ন এই ইঞ্জিন। দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রুটে চলা ট্রেনগুলির গতি বাড়ানোর চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। ‘মিশন রফতার’ নামে নামাঙ্কিত এই প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি প্রান্তে চলা ট্রেনগুলির গতি বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে তারা। এই পরিকল্পনা কতটা সফল হবে তার উত্তর অবশ্য কালের গর্ভেই রয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং