BREAKING NEWS

১৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

সারদা-নারদ-রোজভ্যালির তদন্তকারীদের রদবদল নিয়ে ক্ষোভ সিবিআইয়ের অন্দরে

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: January 17, 2020 10:01 am|    Updated: January 17, 2020 10:01 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বদলি নিয়ে মতান্তর খোদ সিবিআইয়ের অন্দরমহলে। কেন বদলি করা হল? সিবিআই অধিকর্তাকে পাল্টা চিঠি দিয়ে জানতে চাইলেন নারদ কাণ্ডের তদন্তকারী অফিসার।

সারদা-নারদ ও রোজভ্যালি কাণ্ডে তদন্তকারী সিবিআই অফিসারদের এক সঙ্গে বদলি করা হয়েছে। রুটিন বদলি বলে সিবিআই জানালেও নারদ তদন্তের দায়িত্বে থাকা রঞ্জিত কুমার তাঁর বদলিকে এভাবেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে জানতে চেয়ে সিবিআই অধিকর্তা ঋষিকুমার শুক্লকে চিঠি দেন। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ৫ বছর পর কোনও অফিসারকে এক শাখা থেকে অন্য শাখায় বদলি করা গেলেও স্টেশন পরিবর্তন করার আইন নেই। তা করতে গেলে কমপক্ষে দশ বছর লাগে। কলকাতায় রঞ্জিত কুমার আট বছর রয়েছেন, ফলে কী কারণে তাঁকে বদলি করা হল, তিনি জানতে চান। পাশাপাশি এটা কোনওরকম শাস্তিমূলক বিষয় নাকি, যদি হয়, তাও তিনি খোলসা করে জানতে চেয়ে ইমেল করেন।

এদিকে, রোজভ্যালি মামলার তদন্তকারী আধিকারিক শজম শেরপাকে ভুবনেশ্বরে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে যখন শিলং নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হল, তখন এই আধিকারিকদেরও শিলং তলব করা হয় জিজ্ঞাসাবাদের উদ্দেশে। তদন্তকারী অফিসার ব্রতীন ঘোষালকেও বদলি করা হয়েছে।  সারদা মামলার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা অফিসার তথাগত বর্ধনকেও বদলি করা হয়। বদলি করা হয়েছে কলকাতার ভারপ্রাপ্ত জয়েন্ট ডিরেক্টর পঙ্কজ শ্রীবাস্তবকেও। তাঁকে পাঠানো হয়েছে দিল্লির সদর দপ্তরে। তিনটি মামলাতেই তদন্ত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় দাঁড়িয়ে আছে। এই পরিস্থিতিতে এই বদলিতে প্রভাব পড়তে পারে। সিবিআই আধিকারিকরা অবশ্য বলছেন, এটা রুটিন বদলি। এবং খুব শীঘ্রই ওই শূন্যস্থানে নতুন করে লোক নিয়োগ করা হবে। তদন্তে গতি আনতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছে। সব মিলিয়ে সিবিআইয়ের অন্দরে এই বদল নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে।      

[আরও পড়ুন: ফের জোট সংকটে বিজেপি! উপযুক্ত আসন না পেলে একলা চলার হুমকি জেজেপির]

An Images
An Images
An Images An Images