BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘শিক্ষিত’ কেরলে চিকিৎসকের গায়ে থুতু ছিটিয়ে হেনস্তা, নিন্দার ঝড়

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 11, 2020 4:29 pm|    Updated: July 11, 2020 4:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘ঈশ্বরের আপন দেশে’ হেনস্তার শিকার চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। তাঁদের গাড়ি ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখান কনটেনমেন্ট জোনের বাসিন্দারা। এমনকী, গাড়ির ভিতরে হাঁচি-কাশির মাধ্যমে চিকিৎসকদের গায়ে থুতু ছিটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তিরুবন্তপুরমের এই ঘটনায় ওই চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। ফোন করে ঘটনার খবর নিয়েছেন খোদ কেরলের (Kerala) স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা। তবে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশে হামলা’, বলছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। 

শুক্রবার তিরুবন্তপুরমের কনটেনমেন্ট জোনের (Containment Zone) বাসিন্দাদের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করতে যাচ্ছিলেন এক বছর পচিঁশের মহিলা চিকিৎসক ও তিনজন স্বাস্থ্যকর্মী। নির্দিষ্ট কমিউনিটি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পৌঁছে দেখেন সেখানকার মূল ফটক বন্ধ। চোখের নিমেষে উত্তেজিত জনতা তাঁদের গাড়ি ঘিরে ফেলে। গাড়ির চালক তাঁদের সরাতে গেলে তাঁর মাথা ঠুকে দেওয়া হয়। এমনকী, গাড়ির ভিতরে মুখ ঢুকিয়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের গায়ে থুতু ছিটিয়ে দেয়। এরপর কোনওরকমে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে আসেন ওঁরা। গোটা ঘটনায় আতঙ্কে ভুগছেন ওই চিকিৎসক ও তাঁর সহকর্মীরা।

[আরও পড়ুন : প্যাংগংয়ের ফিঙ্গার এলাকা থেকে সরছে লালফৌজ, উপগ্রহ চিত্রে মিলল প্রমাণ]

জানা গিয়েছে, শুক্রবার কেরল (Kerala) তিরুবন্তপুরমের ওই কনটেনমেন্ট জোনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন বাসিন্দারা। সরকারি নিয়মের বিরোধিতা করে মাস্ক ছাড়াই জমায়েত করে তারা। সামাজিক দূরত্বের বিধিনিষেধ উড়িয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, ওই এলাকায় কনটেনমেন্ট জোন (Containment Zone) হওয়ায় তাঁরা বাজার যেতে পারছেন না। এদিকে বাড়িতে খাবার নেই। বাড়ির বাচ্চাদের দুধও বাড়ন্ত। এই সমস্ত অভিযোগে তুলে প্রতিবাদ দেখাচ্ছিলেন তাঁরা। বিক্ষোভ চলাকালীন চিকিৎসকদের গাড়ি ওখানে পৌঁছতে তাঁদের হেনস্তা করা হয়।

[আরও পড়ুন : নাবালকদের আশ্রমে আটকে রেখে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ, ধৃত উত্তরপ্রদেশের স্বঘোষিত গডম্যান]

গোটা ঘটনার কথা শুনে চিকিৎসককে ফোন করেন কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা। চিকিৎসকদের উপর হামলার নিন্দা করে তিনি বলেন, ওই এলাকার বাসিন্দাদের উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য সরকার সমস্তরকম চেষ্টা করছে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত এক করে সেবা করছেন। তাঁদের সঙ্গে এমন আচরণ বরদাস্ত করা হবে না। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করছি। খোঁজ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নও। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement