BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণে দান করলেই মিলবে করছাড়, বড় ঘোষণা কেন্দ্রের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 9, 2020 1:43 pm|    Updated: May 9, 2020 1:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে করোনা আতঙ্কের মধ্যেই অযোধ্যার রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। রাম মন্দির নির্মাণের উদ্দেশ্যে অর্থ সাহায্য করলেই এখন থেকে মিলবে করছাড়। আয়কর আইনের ৮০-জি ধারার অধীনে আনা হল শ্রীরামজন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টকে। এর ফলে মন্দির নির্মাণের জন্য অর্থদান করলে করছাড় পাবেন দাতারা।

IT-notice

 

শুক্রবার কেন্দ্রের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, শ্রীরামজন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র সাধারণ মানুষের প্রার্থনাস্থল। তাছাড়া এর আলাদা ঐতিহাসিক গুরুত্বও আছে। সেজন্যই এই আইনের আওতায় অনুদানের ক্ষেত্রে করছাড় পাচ্ছে রাম মন্দির। আয়কর আইনের ৮০-জি ধারা (80G of the Income Tax Act) অনুযায়ী, কোনও ঐতিহাসিক ভাবে গুরুত্বপূর্ণ নির্মাণ বা মানুষের উপাসনা করার জায়গা তৈরির ক্ষেত্রে এই ছাড় পাওয়া যায়। শ্রীরামজন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টও সেই আইন অনুযায়ীই করমুক্তির আবেদন করেছিল। কেন্দ্র সেই আবেদন গ্রাহ্য করল। এর ফলে মন্দির তৈরির জন্য অর্থ তুলতে আর কোনও সমস্যায় পড়তে হবে না ট্রাস্টকে। বরং করছাড় মেলায় উৎসাহের সঙ্গে দান করবেন রামভক্তরা।

[আরও পড়ুন: বাবরি ধ্বংস মামলা: ৩১ আগস্টের মধ্যে সিবিআই আদালতকে রায়দানের নির্দেশ সু্প্রিম কোর্টের]

উল্লেখ্য, দীর্ঘ অপেক্ষার পর গত বছর ৯ নভেম্বর ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালতের তৎকালীন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ রায়ের দীর্ঘ প্রতিলিপি পড়ে জানান, অযোধ্যার বিতর্কিত জমি যাবে রাম জন্মভূমি ন্যাসের অধীনে। মসজিদ তৈরির জন্য সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে বিকল্প ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালতের সাংবিধানিক বেঞ্চ। বিতর্কিত স্থানে ট্রাস্ট গঠনের মাধ্যমে মন্দির তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করারও নির্দেশ দেয় সর্বোচ্চ আদালত। সেই নির্দেশমতো গত ফেব্রুয়ারি মাসে ১৫ সদস্যের ট্রাস্ট গঠন করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এবার ট্রাস্ট যত দ্রুত সম্ভব মন্দির নির্মাণের কাজ শুরু করতে চাইছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আগেই ঘোষণা করেছিলেন মন্দির তৈরির জন্য কেন্দ্র এক টাকাও খরচ করবে না, করেওনি। তবে এবার ঘুরপথে ট্রাস্টকে অর্থের সংস্থান করে নেওয়ার ব্যবস্থা করল কেন্দ্র।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement