১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভরসা নেই মোদি সরকারে, শিক্ষিকা খুনের পরেই ভূস্বর্গ ছাড়ছেন কাশ্মীরি পণ্ডিতরা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: May 31, 2022 6:28 pm|    Updated: May 31, 2022 7:25 pm

Do'nt trust BJP Government, Kashmiri Pandits to leave Kashmir after teacher killing | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঙ্গলবার সকালে স্কুলের মধ্যে ঢুকে এক কাশ্মীরি পণ্ডিত (Kashmiri Pandit Teacher) শিক্ষিকাকে খুন করল জঙ্গিরা। এই ঘটনার পর থেকেই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন উপত্যকার মানুষ। শ্রীনগরের কাশ্মীরি পণ্ডিতরা পথ অবরোধ করে শিক্ষিকা হত্যার প্রতিবাদ করেছেন। বিক্ষোভকারীরা দাবি করেছেন, অবিলম্বে তাঁদের কাশ্মীর থেকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হোক। আরও জানা গিয়েছে, একদিনের মধ্যেই কাশ্মীর ছেড়ে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন তাঁরা। উপায় না থাকায় পায়ে হেঁটেই কাশ্মীর থেকে জম্মুর দিকে রওনা দিয়েছেন তাঁরা। 

মাসখানেক আগেই অফিসে ঢুকে এক কাশ্মীরি পণ্ডিতকে খুন করে জঙ্গিরা (Terrorist Attack)। তারপরেই কাশ্মীরের রাজ্যপাল মনোজ সিনহা জানিয়েছিলেন, কাশ্মীরি পণ্ডিতরা যেন সুরক্ষিত থাকেন, সেই কারণে তাঁদের নিরাপদ জায়গায় বদলি করে দেওয়া হবে। তিনি বলেছিলেন, “আগামী সাত দিনের মধ্যে নিরাপদ জায়গার অফিসে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের বদলি করে দেওয়া হবে। তাঁদের বাড়িতেও বাড়তি নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।” কিন্তু সেই ঘোষণা বাস্তবায়িত হয়নি।

[আরও পড়ুন: জ্ঞানবাপী মসজিদের ভিডিও ও ছবি ফাঁস! অভিযোগ এড়াতে ফুটেজের এনভেলাপ ফেরাবে হিন্দুপক্ষ]

শ্রীনগর থেকে জম্মু যাওয়ার রাস্তা অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের মধ্যে একজন বলেন, “আমাদের অফিসে ঢুকে খুন করা হচ্ছে। আমরা একটাই জিনিস চাই, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হোক। দাবি না মানলে ১৯৯০ এর মতোই কাশ্মীর (Kashmir) ছেড়ে চলে যেতে হবে আমাদের।” এছাড়াও কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ৪০০০ জন কাশ্মীরি পণ্ডিত বিক্ষোভে সামিল হন। অবস্থা সামাল দিতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে দেখা করেন রাজ্যপাল। কিন্তু তাতেও থামেনি বিক্ষোভ।

মৃত শিক্ষিকা রজনীর এক আত্মীয়া জানিয়েছেন, কিছুদিন ধরেই খুব ভয়ে ভয়ে থাকতেন রজনী। “দু’মাস আগেও সব কিছু ঠিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। কিন্তু কিছুদিন আগেই পরিস্থিতি আচমকা বদলে যায়। আজকে বোঝা গেল কেন ভয় পাচ্ছিলেন রজনী।” মৃতার আরেক আত্মীয়া এই হত্যাকাণ্ডে কেন্দ্রের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেছেন, “এইভাবে বেছে বেছে খুনের ঘটনা বন্ধ করতে পদক্ষেপ করতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে। কাশ্মীরে থাকা মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।” 

মোদি সরকারকে নিশানা করে তোপ দেগেছেন কাশ্মীরে পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রধান মেহবুবা মুফতি। বিজেপি সরকারের ধর্মীয় বিভাজন নীতির ফলেই বেছে বেছে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উপরে হামলা চালানো হচ্ছে, এমনটাই মত তাঁর। মুফতি বলেছেন, “ভারত সরকার দাবি করে কাশ্মীরে কোনও অশান্তি নেই। কিন্তু বারবার সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে জঙ্গি হামলা হচ্ছে। এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। বিজেপি সরকারের মুসলিম বিরোধী নীতির ফলেই বারবার এই ধরনের ঘটনা ঘটছে।” এই ঘটনার নিন্দা করে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিঁধে টুইট করেছেন ওমর আবদুল্লাহও। 

[আরও পড়ুন: গোমাতাকে পরিত্যাগ করলেই যেতে হবে জেলে! পশু সুরক্ষায় নয়া আইন যোগী রাজ্যে

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে