BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনের মাঝে কম্পনের নয়া আতঙ্ক, কেঁপে উঠল দিল্লি ও NCR অঞ্চল

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 12, 2020 6:59 pm|    Updated: April 12, 2020 6:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আতঙ্ক, লকডাউনের মাঝে আরেক বিপর্যয়। রবিবার বিকেলে দিল্লি ও সংলগ্ন NCR এলাকা কেঁপে উঠল মৃদু ভূমিকম্পে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৩.৫। যদিও ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর মেলেনি এখনও পর্যন্ত। তবে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে।

ঘড়িতে সময় তখন বিকেল ৫টা ৪৫। আচমকাই কেঁপে ওঠে দিল্লি, নয়ডা, গুরুগ্রাম এলাকার মাটি। কম্পন টের পান স্থানীয় বাসিন্দারা। ভূমিকম্প হচ্ছে, টের পাওয়ামাত্রই বাড়ির বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। এদিকে, ওই এলাকায় করোনা সংক্রমণ রুখতে চলছে লকডাউন। NCRএর কিছু অংশ হটস্পট হওয়ায়, তা সিল করে দেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় বাড়ির বাইরে পা রাখা বারণ। তারই মধ্যে কম্পন থেকে বাঁচতে কী ভাবে কী করবেন, তা ভেবেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছিলেন ঘরবন্দি মানুষজন।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে বন্ধ সেলুন, বাবার দাড়ি ছেঁটে ভিডিও পোস্ট করলেন মন্ত্রীর ছেলে]

যদিও কম্পন বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ক্ষয়ক্ষতিও তেমন কিছু হয়নি। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের ডিজি সত্যেন্দ্র নারায়ণ প্রধান জানিয়েছেন, ভূমিকম্পের উৎসস্থল দিল্লির মূল ভূখণ্ড থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে। যার জেরে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে নয়ডা, গুরুগ্রাম, গাজিয়াবাদ এলাকায়। ঘটনার খবর পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। টুইট করে তিনি সকলকে নিরাপদে থাকার বার্তা দিয়েছেন।

দিন কয়েক আগে এ রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলও কেঁপে উঠেছিল। জোড়া কম্পন অনুভূত হয় বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও দুর্গাপুরের কিছুটা অংশে। একটির উৎসস্থল ছিল দুর্গাপুর থেকে উত্তরের দিকে এবং আরেকটি কম্পনের কেন্দ্র ছিল লাক্ষাদ্বীপ। যদিও সেখানেও কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

[আরও পড়ুন: ‘লকডাউনে কারখানা এবং রাস্তার কাজে আংশিক ছাড় দিন’, মোদিকে পরামর্শ একাধিক মন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement