BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  সোমবার ২৩ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ক্যাপ্টেনের পরামর্শে সায়, পাঞ্জাবে বিজেপির প্রার্থী তালিকায় ভিড় অন্নদাতাদের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: January 27, 2022 12:06 pm|    Updated: January 27, 2022 12:08 pm

Farmers are on BJP's candidate list in Punjab Assembly Election | Sangbad Pratidin

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: ‘মোর নাম এই বলে খ্যাত হোক, আমি তোমাদেরই লোক।’ ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের (Captain Amarinder Singh) পরামর্শে কৃষকদের উদ্দেশ্যে এই বার্তা দিয়েই পঞ্চ নদের দেশে নিজেদের পায়ের তলার জমি শক্ত করতে নেমেছে বিজেপি (BJP)।

সম্প্রতি ৩৪ জনের প্রাথমিক প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে পদ্মশিবির। তাঁদের মধ্যে ১২ জনই কৃষক পরিবারের সদস্য। ২০১৯ সালে সংসদে তিন কৃষি আইন পাশ হওয়ার পর থেকে দেশজুড়ে শুরু হয় প্রতিবাদ। যার উৎসস্থল ছিল পাঞ্জাব। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা লাগাতার আন্দোলনের জেরে গত বছরের শেষ দিকে তিন ‘কালা কানুন’ প্রত্যাহার করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)।

যেদিন থেকে সংসদে কৃষি আইন পাশ হয়, সেদিন থেকেই তাঁর ও বিজেপির গায়ে সেঁটে গিয়েছে অদৃশ্য কৃষক বিরোধী তকমা। পাঞ্জাবের মতো রাজ্যে যে তকমা নিয়ে খেলতে নামা মানে রেফারির বাঁশি বাজার আগেই পাঁচ গোল খেয়ে যাওয়া। এমনিতেই পাঞ্জাবে বিজেপির সেভাবে কোনও অস্তিত্ব কোনওকালেই নেই। শেষ তিনবার প্রকাশ সিং বাদলের নেতৃত্বে যখন শিরোমনি অকালি দল পাঞ্জাবে মসনদে বসেন, তখন জোটসঙ্গী হিসাবে শুধু পাঞ্জাবে বিধানসভার স্বাদ পেয়েছে গেরুয়া শিবির। এই পরিস্থিতিতে কৃষক আন্দোলন পরবর্তী সময়ে কৃষিপ্রধান রাজ্যটিতে আরও বেকায়দায় দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল।

[আরও পড়ুন: সিধুকে পাঞ্জাবের মন্ত্রী করতে সুপারিশ করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী! বিস্ফোরক অমরিন্দর সিং]

ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে ও কৃষক মনে ঠাঁই পেতে তাই প্রাথমিক তালিকার প্রায় এক তৃতীয়াংশ আসনে তারা প্রার্থী করেছে অন্নদাতা পরিবারের সদস্যদের। সূত্রের খবর অনুযায়ী, এর পিছনে রয়েছে নবতম জোটসঙ্গী ও পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের পরামর্শ।

অবশ্য শুধু কৃষকই নয়। শিখ অধ্যুষিত রাজ্যে ১৩ জন শিখও ঠাঁই পেয়েছে বিজেপির প্রার্থী তালিকায়। আছেন ৮ দলিত প্রার্থী। সাধারণত, বিজেপি প্রার্থী তালিকা জুড়ে থাকে হিন্দু মুখ। তবে পাঞ্জাবের ক্ষেত্রে তা করলে যে হালে খুব একটা পানি পাওয়া যাবে না, সেই দেওয়াল লিখন রাজনৈতিক শিক্ষানবিশও পড়তে পারে। তাই শিখ আধিক্য নিয়ে সেভাবে কিছু না বললেও বিশেষজ্ঞদের নজর কেড়েছে কৃষক প্রার্থীর সংখ্যা। ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংকে অবশ্য কৃষকদের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠতে এই সমীকরণের খুব একটা প্রয়োজন নেই। আন্দোলন চলাকালীন প্রায় গোটা সময়টাই তিনি ছিলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর তখতে।

[আরও পড়ুন: প্রাক্তন কমেডিয়ানকে পাঞ্জাবে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করল AAP, ঘোষণা কেজরিওয়ালের]

আগাগোড়া কৃষকদের হয়েই কথা বলে এসেছেন ক্যাপ্টেন। এমনকী বিজেপির সঙ্গে জোট কথাবার্তা শুরুর দিকে শর্ত রেখেছিলেন কৃষি আইন বাতিল হলে তবেই একসঙ্গে লড়বেন। তাঁর দল পাঞ্জাব লোক কংগ্রেস যে ৩৭টি আসনে লড়ছে, তার মধ্যে এখনও পর্যন্ত ২২টি কেন্দ্রে প্রার্থী ঘোষণা করেছেন ক্যাপ্টেন। যার মধ্যে ১৭টিই মালওয়া অঞ্চলে। যেখানে তাঁর জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বি।

একই কথা প্রযোজ্য কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি ও শিরোমনি অকালি দলের ক্ষেত্রেও। আন্দোলনের পুরোটা সময় কৃষকদের পাশে থেকেছে এই তিন দল। তাই অমরিন্দর সিং বা অন্য তিন প্রধান দলের নিজেদের নতুন করে কৃষকপ্রেমী হিসাবে প্রমাণ করার কিছু না থাকলেও ক্যাপ্টেনের মন্ত্রে নিজেদের গায়ে কৃষকপ্রেমী জার্সি তোলায় জোর দিচ্ছে বিজেপি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে