১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শরীর ভাল নেই। তাই মন্ত্রিসভার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি চেযেছিলেন অরুণ জেটলি। এবার অসুস্থতার জন্যই এগিয়ে আনা হল তাঁর ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানও। পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, জেটলির শরীর খুবই ভেঙে পড়েছে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শে বিয়ের অনুষ্ঠান এগিয়ে আনা হয়েছে। জেটলির অসুস্থতায় গোয়ার প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিকরের ছায়া দেখছে রাজনৈতিক মহল। দু’জনেই দুঁদে রাজনীতিবিদ। দু’জনেই দায়িত্বে থাকাকালীনই অসুস্থ হয়ে পড়েন। মাসখানেক আগে প্রয়াত হন পারিকর। এখন জেটলির অসুস্থতাও যেদিকে মোড় নিচ্ছে, তাতে গতিক যে সুবিধার নয়, এই আশঙ্কা ক্রমশ দৃঢ় হচ্ছে ঘনিষ্ঠ মহলের। আমূল পালটে গিয়েছে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর চেহারা৷

তার উপর ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান এগিয়ে আনায়, আশঙ্কা আরও জোরদার হচ্ছে। জানা গিয়েছে, অরুণ জেটলির ছেলে রোহন জেটলির বিয়ে ঠিক হয়েছিল নভেম্বর মাসে। কিন্তু ক্রমশ খারাপ হচ্ছে বাবার শরীর। চিকিৎসকদের পারমর্শে তাই রোহনের বিয়ে এগিয়ে আনা হয়েছে জুনে। পরের মাসেই হবে বিয়ের অনুষ্ঠান। তবে এখনও এনিয়ে অরুণ জেটলির পরিবারের তরফে কিছু জানানো হয়নি। হয়তো মন্ত্রিসভা ঘোষণার পরই একথা প্রকাশ্যে আনবে জেটলি পরিবার।

[ আরও পড়ুন: ‘বিদেশি’ চিহ্নিত কারগিল যুদ্ধের সেনা! অসমের ডিটেনশন ক্যাম্পে সানাউল্লাহ ]

এদিকে বুধবারই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি শারীরিক অসুস্থতার কারণে মন্ত্রীপদ না নেওয়ার আর্জি জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীকে। প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে জেটলি জানিয়েছেন, “গত কয়েক মাস ধরেই আমার শারীরিক অবস্থা ভাল নয়। আমি এখন নিজেকে সময় দিতে চাই। তাই দল বা মন্ত্রিসভার কোনও দায়িত্বভার আর সামলাতে চাই না। এটা আমার কাছে অসাধারণ এবং শিক্ষণীয় অভিজ্ঞতা ছিল। আমি প্রথম এনডিএ সরকারেও মন্ত্রী ছিলাম দলেও অনেক দায়িত্ব সামলেছি। গত ১৮ মাসে আমি বেশ কিছু গুরুতর শারীরিক সমস্যায় ভুগেছি। আপাতত আমি কিছুদিনের জন্য বিশ্রাম চাইছি।”  

শোনা গিয়েছে, তাঁকে বোঝাতে স্বয়ং মোদি বুধবার রাতে তাঁর বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু জানা গিয়েছে নিজের সিদ্ধান্তে অনড় জেটলি। আজ তিনি শপথ না নিলে তাঁর জায়গাতে নতুন মুখ আসতে চলেছে নিশ্চিতভাবে। এখন দেখার জেটলির পরিবর্তে অর্থমন্ত্রকের দায়িত্ব কে পান। গত বছর ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলানো পীযূষ গোয়েল লড়াইয়ে এগিয়ে আছেন। তবে, শেষপর্যন্ত যদি অমিত শাহ অর্থমন্ত্রকে আসেন তাহলে পীযূষকে অন্য মন্ত্রক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হবে।

[ আরও পড়ুন: আজ শপথ নেবেন মোদি, অনুষ্ঠানের আগে দিল্লিতে চাঁদের হাট ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং