৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পরিবারের আপত্তি সত্ত্বেও দলিতকে বিয়ে করেছেন৷ বিজেপি বিধায়কের মেয়ে সাক্ষীর অভিযোগ, তারপর থেকে বাবা তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন৷ তরুণীর অভিযোগ ঘিরে তোলপাড় রাজনীতির অলিন্দ৷ অভিযোগ-পালটা সাফাইয়ের মাঝে একটিমাত্র টুইটেই বিতর্ক বাড়ালেন মধ্যপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক গোপাল ভার্গব৷ এভাবে চলতে থাকলে কন্যাভ্রূণ হত্যা বাড়বে বলেই দাবি তাঁর৷

[ আরও পড়ুন: জি নিউজের বিরুদ্ধে মহুয়া মৈত্রর মানহানি মামলা, শুনানি পিছোল ২০জুলাই পর্যন্ত]

রবিবার মধ্যপ্রদেশের বিজেপি নেতা গোপাল ভার্গব টুইটে লেখেন, ‘‘এভাবে পালিয়ে বিয়ে বাড়তে থাকলে একসময় ঘরে ঘরে গর্ভপাত করা হবে৷ সংবাদমাধ্যম যেভাবে পুরো বিষয়টিকে দেখাচ্ছে তা চলতে থাকলে আগামী কয়েক বছরে কন্যাভ্রূণ আর থাকবে না৷ হাসপাতাল, নার্সিংহোমগুলিতে গর্ভপাতের সংখ্যা বাড়তে থাকবে৷ তাতে দেশে পুরুষ-নারীর অনুপাতের হেরফের হয়ে যাবে৷ যতই বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও প্রকল্পের প্রচার করা হোক না কেনও কোনও লাভ হবে না৷ আমাদের দেশ কীভাবে এগোবে? বরং ৫০ বছর পিছিয়ে যাবে৷’’

ওয়াকিবহাল মহলের দাবি, উত্তরপ্রদেশের বরেলির বিজেপি বিধায়ক রাজেশ মিশ্রের পাশে দাঁড়াতে গিয়েই এমন টুইট করেছেন গোপাল ভার্গব৷ ইতিমধ্যেই এই টুইটের সমালোচনায় সরব হয়েছে সব মহলই৷ কীভাবে বর্তমান যুগে এমন মন্তব্য করা যায়, সেই প্রশ্ন তুলেছেন সমালোচকরা৷

[ আরও পড়ুন: ‘মুসলিমরা পশুর মতো প্রচুর সন্তানের জন্ম দেয়’, বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি বিধায়কের]

সদ্যই বাড়ির লোকজনের অমতে মন্দিরে গিয়ে দলিত পরিবারের সন্তানকে বিয়ে করেন বিজেপি বিধায়কের মেয়ে সাক্ষী৷ এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করে বাবার বিরুদ্ধে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেন তিনি৷ পুলিশের কাছ থেকে নিরাপত্তার আরজি জানান৷ বাবার বিরুদ্ধে এলাহাবাদ হাই কোর্টের দ্বারস্থও হন সাক্ষী৷ ভিডিও প্রকাশের পর লাইভ অনুষ্ঠানেও বাবার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি৷ ভেজা চোখে বাবাকে ভাবনা বদলানোর পরামর্শ দেন সাক্ষী৷

সোমবার এলাহাবাদ হাই কোর্টে বাবার বিরুদ্ধে মামলার শুনানিতে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে আক্রান্ত হন সাক্ষী এবং তাঁর স্বামী অজিতেশ৷ এই ঘটনার নেপথ্যেও বাবার কারসাজি রয়েছে বলেই অভিযোগ বিধায়কের মেয়ের৷ যদিও বিধায়ক রাজেশ মিশ্র মেয়ের তোলা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ শুধুমাত্র অজিতেশের কম উপার্জন এবং মেয়ের সঙ্গে বয়সের ফারাকের জেরে বিয়েতে বিরোধিতা বলেই দাবি বিধায়কের৷ তবে বিধায়ক যাই বলুক না কেন আদালত প্রাপ্তবয়স্ক সাক্ষী এবং অজিতেশের বিয়েকে মান্যতা দিয়েছে৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং