BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সন্ত্রাসের দিন ফেরাতে চাইছে গুপকার জোট! কাশ্মীরে ‘আন্তর্জাতিক’ ষড়যন্ত্রের অভিযোগ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 17, 2020 3:24 pm|    Updated: November 17, 2020 5:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জম্মু কাশ্মীরের বিরোধী গুপকার জোট নিয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর (Amit Shah)। তিনি বলছেন, কংগ্রেস তথা গুপকার জোট জম্মু ও কাশ্মীরে সন্ত্রাসের সেই চেনা দিনগুলি ফিরিয়ে আনতে চাইছে। আর সেজন্য আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপ দাবি করছে তারা।

গত মাসে জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি (Mahbooba Mufti) বন্দিদশা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ৩৭০ ধারা ফেরাতে চেয়ে জোটবদ্ধ হয়েছিল একদা যুযুধান ফারুক আবদুল্লা, মুফতি। তৈরি হয়েছিল ‘পিপলস অ্যালায়েন্স ফর গুপকার ডিক্লেরেশন’ (PAGD)। রাজনৈতিকভাবে ভূস্বর্গে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়লেও ওই জোটে নাম লেখায় সিপিএমও। তবে ইতস্তত করছিল কংগ্রেস। কিন্তু পরে কংগ্রেসও সেই শিবিরে নাম লেখায়। স্থানীয় কংগ্রেস নেতারা ঘোষণা করেন, তাঁরা এই গুপকার জোটেরই অংশ।

[আরও পড়ুন: কেন বিহারের মন্ত্রিসভায় নেই সুশীল মোদি? চাঞ্চল্যকর দাবি আরজেডি নেতার]

মঙ্গলবার দুপুরে তথাকথিত এই জোটের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর দাবি, এই গুপকার জোট এবার কাশ্মীর ইস্যুতে আন্তর্জাতিক শক্তির হস্তক্ষেপ চাইছে। টুইটারে অমিত শাহ অভিযোগ করছেন,”গুপকার জোট এবার আন্তর্জাতিক শক্তির দ্বারস্থ। ওঁরা চায় আন্তর্জাতিক শক্তি কাশ্মীর নিয়ে নাক গলাক। ওঁরা দেশের জাতীয় পতাকাকে অস্বীকার করে। সোনিয়াজি (Sonia Gandhi), রাহুলজি কি এই জোটকে সমর্থন করেন? আপনাদের উচিৎ নিজেদের অবস্থান কাঁচের মতো স্বচ্ছ করা।” শাহ বলছেন,”কংগ্রেস এবং গুপকার জোট কাশ্মীরকে পুরনো সন্ত্রাসের দিনগুলিতে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চায়। সেজন্যই মানুষ ওদের প্রত্যাখ্যান করছে।” স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন,”জম্মু-কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল, আছে থাকবে। ভারতবাসী এই অনৈতিক ‘আন্তর্জাতিক’ জোট কিছুতেই মেনে নেবে না।”

শাহর এই বক্তব্যের জবাব এসেছে বিরোধী শিবির থেকেও। কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ বলছেন,”যারা যারা বিজেপির আদর্শ, এবং মতবাদ মানছে না। তাঁদেরই এভাব হয় দুর্নীতিগ্রস্ত নাহয় দেশদ্রোহী হিসেবে দেগে দেওয়া হচ্ছে।”

s

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement