BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হরিবংশ সিং, ‘দুর্দান্ত আম্পায়ার’, তারিফ মোদির

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 14, 2020 8:42 pm|    Updated: September 15, 2020 12:51 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেন হরিবংশ সিং। সোমবার বাদল অধিবেশনের প্রথম দিন বিরোধীদের সমর্থনপ্রাপ্ত প্রার্থী আরজেডি দলের প্রোফেসর মনোজ কুমার ঝাকে ধ্বনিভোটে পরাজিত করেন তিনি।

[আরও পড়ুন: রাম মন্দির নিয়ে পোস্ট করায় খুনের হুমকি, হাই কোর্টের দ্বারস্থ মহম্মদ শামির স্ত্রী হাসিন জাহান]

এই জয় যে একপ্রকার নিশ্চিত ছিল তা বলাই বাহুল্য। আগেই খবর ছিল, নীতীশ কুমারের (Nitish Kumar) সংযুক্ত জনতা দলের সাংসদ হরিবংশ নারায়ণ সিংকে (Harivansh Narayan Singh) ফের ওই পদের জন্য প্রার্থী করা হবে। ২০১৮ সালে তিনি নির্বাচিত হন ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে। কিন্তু এর মধ্যে তাঁর সাংসদ পদের মেয়াদ শেষ হওয়ায় নির্বাচনে যেতে হয়। হরিবংশ আবার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন। তাই তিনিই ফের প্রার্থী হবেন। সেই জল্পনা সত্যি করে এদিন ফের রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন বিহারের ওই সাংসদ।

এদিকে, হরিবংশ সিংয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে তাঁকে ‘দুর্দান্ত আম্পায়ার’ বলে তারিফ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুধু তাই নয়, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে বাঁচিয়ে রাখতে বিহারের জয়প্রকাশ নারায়ণ, করপুরি ঠাকুরের মতো নেতাদের কথা মনে করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী। সদনের উচ্চকক্ষে এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “হরিবংশজি গণতন্ত্রের ধ্বজাধারি। তিনি বিহারের সন্তান। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ রক্ষায় ওই প্রদেশের অবদান সর্বজনবিদিত। আমরা সবাই জানি লোকনায়ক জয়প্রকাশ নারায়ণের জন্মস্থান সীতাবদিয়ারার মানুষ হরিবংশজি। আমি মনে করি বিহারের সেই গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্য আরও এগিয়ে নিয়ে যাবেন তিনি।”

বিশ্লেষকদের মতে, রাজ্যসভায় বিরোধীদের অবস্থান সেই অর্থে মজবুত নয়। তাও লড়াই করার উদ্দেশ্যে প্রার্থী দিয়েছিল তারা। বিশেষ করে কংগ্রেস দলের সোনিয়া গান্ধীর উদ্যোগে ডেপুটি চেয়ারম্যান পদের জন্য কিছুটা হলেও উদ্যোগী হয় বিরোধী শিবির। তবে শেষমেশ প্রত্যাশিতভাবেই জয়ী হন হরিবংশ সিং। সদনের উচ্চকক্ষে লাগাতার শক্তিবৃদ্ধির ফলে ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ বিলগুলি দ্রুত পাশ করতে সক্ষম হবে এনডিএ সরকার। ফলে সেক্ষেত্রেও বিরোধীদের উপর চাপ সৃষ্টি হবে বলেই মনে করছেন অনেকে।

[আরও পড়ুন: জরিমানা দিলেও সুপ্রিম কোর্টের রায় মানছেন না আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ, দায়ের রিভিউ পিটিশন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement